করোনা লাইভ
আজকে আক্রান্ত : ২,২৯৩ ◈ আজকে মৃত্যু : ৩১ ◈ মোট সুস্থ্য : ৩৮৩,২২৪
প্রচ্ছদ / বিনোদন / বিস্তারিত

আইয়ুব বাচ্চুর মৃত্যুবার্ষিকীতে চট্টগ্রামে সংগীতজ্ঞদের আয়োজন

১৯ অক্টোবর ২০২০, ২:৩৭:৩৬

চট্টগ্রাম ব্যুরো::
কিংবদন্তি গিটারিস্ট ও সংগীত শিল্পী আইয়ুব বাচ্চুর দ্বিতীয় মৃত্যুবার্ষিকী ছিলো রোববার (১৮ অক্টোবর)। স্ত্রী-সন্তানেরা দেশের বাইরে কি আয়োজন করছে তা জানা না গেলেও, তার পরিবার ও চট্টগ্রামের সংগীত শিল্পীদের আয়োজন সম্পর্কে জানা গেছে।

২০১৮ সালের (১৮ অক্টোবর) ঢাকার স্কয়ার হাসপাতালে সকাল ৯টা ৫৫ মিনিটে শেষ নিঃশ্বাস ত্যাগ করেন আইয়ুব বাচ্চু। দেশের শীর্ষস্থানীয় ব্যান্ড এলআরবি’র দলনেতা এবি ছিলেন একাধারে গায়ক, গিটারিস্ট, গীতিকার, সুরকার, সংগীত পরিচালক। গিটারের জাদুকর হিসেবে আলাদা সুনাম ছিল তার। ভক্তদের কাছে তিনি ‘এবি’ নামেও পরিচিত ছিলেন।

আইয়ুব বাচ্চুর দ্বিতীয় মৃত্যুবার্ষিকী উপলক্ষে চট্টগ্রামের সংগীত শিল্পীরা বিভিন্ন আয়োজনে স্মরণ করেছেন প্রিয় গিটারিস্টকে। সকাল থেকে তার কবরে খতমে কুরআন ও মিলাদের মাধ্যমে তার জন্য দোয়ার ব্যবস্থা করেছেন।

মিলাদে চট্টগ্রামের সংগীত শিল্পীরাসহ এল আর বি ব্যান্ড দলের সদস্যরা উপস্তিত ছিলেন। বাদে আসর ভক্ত ও বন্ধুমহল পুষ্পস্তবক অর্পণ করে তার কবরে। পরবর্তীতে প্রবর্তক মোড়ের রুপালি গিটারে ও তারা পুষ্পস্তবক অর্পণ করেন। রাতে ২নং গেইটে একটি ক্লাবে মেজবানির আয়োজনও করা হয়েছে।

২০১৮ সালের এদিনে (১৮ অক্টোবর) সকালে আইয়ুব বাচ্চু শেষ নিঃশ্বাস ত্যাগ করেন। এতে শোকের ছায়া নেমে আসে দেশের সংগীত শিল্পীদের মাঝে। সেদিন জেমস রাষ্ট্রীয় উন্নয়ন মেলার কনসার্ট প্রিয় এবিকে উৎসর্গ করেছিলেন। আর কান্না বিজড়িত কণ্ঠে বলেন, বাচ্চু ভাই বলেছিলেন- যাই হোক ‘শো মাস্ট গো অন’! আজও অন। আমি চেষ্টা করছি।’

এরফান চৌধুরী বলেন, আইয়ুব বাচ্চুর পরিবার দেশের বাইরে আছেন। তবে তারা ভাল আছেন বলেও জানান তিনি। তার দ্বিতীয় মৃত্যুবার্ষিকী উপলক্ষে নগরীর স্টেশন রোড জামে মসজিদে বাদে আসর মিলাদ মাহফিলের আয়োজন করা হয়েছে।

তীরন্দাজ ব্যান্ডের লিডার ও ভোকাল সান সাহেদ বলেন, বাচ্চু ভাইয়ের দ্বিতীয় মৃত্যুবার্ষিকী উপলক্ষে আমরা সকাল থেকে কুরআন খতমসহ মিলাদ মাহফিলের আয়োজন করেছি। রাতে ২নং গেইট সমাবেশ ক্লাবে কুলখানি হয়। এতে দেশের গুরুত্বপূর্ণ সংগীত শিল্পীরাও আসেন।

উল্লেখ্য, তার দ্বিতীয় মৃত্যুবার্ষিকীতে এলো সু সংবাদ। প্রথমবারের মতো কোনো শিল্পীর গান সংরক্ষণের জন্য ডিজিটাল প্লাটফর্ম ওয়েবসাইট ও ইউটিউব চ্যানেল করতে সরকারিভাবে আর্কাইভ গড়ে তোলা হচ্ছে। প্রাথমিকভাবে উনার ২৭২টি গান সংরক্ষিত আছে। এগুলোর সবকিছুর উত্তরাধিকার হিসেবে থাকবে তার দুই সন্তান। বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন কপিরাইট রেজিস্ট্রার জাফর রাজা চৌধুরী।

দৈনিক আলোর প্রতিদিন এর প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।

পাঠকের মতামত: