করোনা লাইভ
আজকে আক্রান্ত : ৫১৫ ◈ আজকে মৃত্যু : ৭ ◈ মোট সুস্থ্য : ৪৯৮,৩৯১
প্রচ্ছদ / বিনোদন / বিস্তারিত

আমি ব্যাথা পাই নাই, অইটা ছিল অভিনয় : কুদ্দুস বয়াতি

১৮ ফেব্রুয়ারি ২০২১, ৩:৩৫:৪৭

ফেসবুকে একটি ছবি ছড়িয়ে পড়েছে। যেখানে দেখা যাচ্ছে করোনা ভ্যাকসিন নিতে গিয়ে প্রচণ্ড ব্যাথায় কুকুড়ে গেছেন কুদ্দুস বয়াতি। আর এই ছবিটাই ফেসবুকে হোমপেজ জুড়ে ঘুরে বেড়াচ্ছে। এই ছবিটিকে টিকা নেওয়ার ছবি না, মজা করে অভিনয় করেছেন বলে জানালেন কুদ্দুস বয়াতি।

কুদ্দুস বয়াতি বলেন, আমি টিকা নিছি, এখন আমি আমার গানের জগতে ফিরবো। আমার খুব আনন্দ হচ্ছে। মাননীয় প্রধানমন্ত্রীকে আমি ধন্যবাদ জানাই তিনি সাধারণ মানুষকে বিনামূল্যে টিকা নেওয়ার ব্যবস্থা করে দিয়েছেন। আমার প্রধানমন্ত্রী আমাদের দুখী মানুষদের দুঃখ বোঝে, আমি কৃতজ্ঞ- আপনারা একটু লেইখা দিবেন।
কুদ্দুস বয়াতি টিকা নেয়ার ভাইরাল ছবি।
নেত্রকোনার কেন্দুয়ায় কুদ্দুস বয়াতি টিকা নেন। সেই টিকা কেন্দ্র থেকেই কুদ্দুস বয়াতির ওই তোলা ছবিটি ভাইরাল হয়ে যায়। একজন মেডিক্যাল অ্যাসিস্ট্যান্ট ছবিটি তুলেছেন, তিনি যে ছবিটি ফেসবুকে ছেড়ে দিবেন সেটা জানতেন না।

ভাইরাল ছবির ব্যাপারে কুদ্দুস বয়াতি বললেন, ‘আরে না, ভ্যাকসিন নেওয়ার সময় অভিনয় করতাছিলাম। ভ্যাক্সিন আমার আগেই নেওয়া হইছিল। আমি একটু ব্যথা পাই নাই। ভ্যাকসিন নিতে ব্যাথা নাই। বোঝাও যায় না। আমার যে ছবিটা ফেসবুকে ছাড়ছে শুনলাম, ওইটা কামটা ঠিক করে নাই। কেউ যে ছবি তুইল্লা ছাইড়া দিবো জানতাম না। আরো ভালো জানতে পারবেন, আমার পোলা আমার টিকা নেওয়ার ভিডিও ছাড়বো ইউটিউবে। ওইটার জন্যই একটু অভিনয়ও করছি।’

কুদ্দুস বয়াতি সরকারের যে কোনো উদ্যোগকে ইতিবাচক ভাবে নেন। গত বছর ধান কাটার সময় যখন লোকজন পাওয়া যাচ্ছিল না। তখন উৎসাহ দিতে ধান কাটতে নেমে পরেছিলেন, সেই সঙ্গে গান বেঁধে জনগনকে আগ্রহী করেছিলেন ফসল ঘরে তোলার জন্য।

কুদ্দুস বয়াতি সে সময় বলেছিলেন, ‘করোনাভাইরাসের কারণে কৃষকরা এখন বিপাকে আছেন। এই মুহূর্তে তাঁদের পাশে দাঁড়ানো আমাদের দায়িত্ব। কৃষকদের উৎসাহ দিতেই আমি তাঁদের সঙ্গে ধান কাটা শুরু করেছি। সবাইকে আহ্বান জানাব, এই সময়টায় কৃষকদের ধান কেটে দিয়ে সাহায্য করার জন্য। কৃষক বাঁচলেই বাঁচবে বাংলাদেশ।’

দৈনিক আলোর প্রতিদিন এর প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।

পাঠকের মতামত: