প্রচ্ছদ / ক্যাম্পাস / বিস্তারিত

সায়েম পাটওয়ারী

জেলা প্রতিনিধি (লক্ষীপুর)

গণধর্ষণের শাস্তি মৃত্যুদণ্ড দাবি

৪ জানুয়ারি ২০১৯, ১১:০৪:৪৮

মোঃ সায়েম পাটওয়ারীঃনোয়াখালীর সুবর্ণচরে গণধর্ষণের হোতাদের সর্বোচ্চ শাস্তির দাবি জানিয়েছে যৌন নিপীড়নবিরোধী শিক্ষার্থীজোট। শুক্রবার বিকেলে রাজধানীর শাহবাগ জাতীয় জাদুঘরের সামনে এক মানববন্ধনে তারা এ দাবি জানান।

মানববন্ধনে ধর্ষকদের সর্বোচ্চ শাস্তি দাবি করে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ইতিহাস বিভাগের অধ্যাপক মেসবাহ কামাল বলেন, ‘নোয়াখালীর সুবর্ণচরের এই ঘটনা আমাদের দেশের ইতিহাসে সবচেয়ে ন্যক্কারজনক ঘটনাগুলোর একটি। যে দেশের জন্মের পেছনে ত্রিশ লক্ষ শহীদের রক্ত ও পাঁচ থেকে ছয় লক্ষ নারীর ইজ্জত আছে, সেই দেশে মুক্তিযুদ্ধের সরকার যখন ক্ষমতায়, তখন তার দলের লোকদের হাতে প্রতিপক্ষকে ভোট দেওয়ার কারণে গণধর্ষণের ঘটনা ঘটতে পারে, এটা কল্পনা করা যায় না। যারা এই ঘটনা ঘটিয়েছে, আমি তাদের মৃত্যুদণ্ড এবং এই ব্যাপারে আইনের যে অপ্রতুলতা রয়েছে, তা সংশোধনের দাবি জানাচ্ছি।’

আওয়ামী লীগের উদ্দেশে তিনি বলেন, ‘গোটা দেশ ইতোমধ্যে জানে, যারা ঘটনা ঘটিয়েছে, তারা আওয়ামী লীগের লোক। স্বীকার করুন, আপনাদের দলের লোকেরা ঘটনাটা ঘটিয়েছে এবং তাদের বিরুদ্ধে দল ও রাষ্ট্রের পক্ষ থেকে ব্যবস্থা নেন। তাদের সবাইকে যেন গ্রেফতার করা হয় এবং দ্রুত বিচার ট্রাইব্যুনালের মাধ্যমে যেন তাদের সর্বোচ্চ শাস্তি দেওয়া হয়- সেটা সুনিশ্চিত করুন। স্থানীয় পুলিশ ও প্রশাসন রাজনৈতিক পরিচয়ের কারণে ধর্ষককে আড়াল করার চেষ্টা করেছে। সেই অপরাধে তাদের বিরুদ্ধেও ব্যবস্থা নেওয়া দরকার।’

মানববন্ধনে অন্যদের মধ্যে বক্তব্য দেন যৌন নিপীড়নবিরোধী শিক্ষার্থীজোটের আহ্‌বায়ক শিবলী হাসান, সমাজতান্ত্রিক ছাত্রফ্রন্টের ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় শাখার সভাপতি সালমান সিদ্দিকী, বাংলাদেশ ছাত্রলীগ-বিসিএলের কেন্দ্রীয় সভাপতি শাহজাহান আলী সাজু, লেখক ও অ্যাকটিভিস্ট মারুফ রসূল, সংস্কৃতিকর্মী সানজিদা কাজী, হিল উইমেন্স ফেডারেশনের সদস্য রূপসী চাকমা এছাড়াও উপস্থিত ছিলেন হেল্পিং হ্যান্ড বাংলাদেশ এর সায়েম পাটওয়ারী, প্রমুখ।

শিবলী হাসান বলেন, ‘বিচারহীনতা ও বিচারে দীর্ঘসূত্রতার কারণে আমাদের দেশে আক্রান্তরা অপরাধের বিচার পান না। ফলে অপরাধের ক্ষেত্র তৈরি হয়। ২০০১ সালের নির্বাচনের পরে ধর্ষণের শিকার পূর্ণিমা রাণী শীলের কথা আমরা ভুলে যাইনি। সেই সময় ক্ষমতায় থাকা বিএনপি-জামায়াতের সরকার সেই ঘটনার বিচার করেনি। নোয়াখালীর সুবর্ণচরেও মধ্য-যুগীয় কায়দায় ধর্ষণের ঘটনা ঘটেছে।’ তিনি বলেন, সুশাসন নিশ্চিত করতে না পারলে মুক্তিযুদ্ধের চেতনা বাস্তবায়িত হবে না।

দৈনিক আলোর প্রতিদিন এর প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।

পাঠকের মতামত: