প্রচ্ছদ / রাজনীতি / বিস্তারিত

মতলবে লুধুয়া স্কুল এন্ড কলেজের প্রাক্তন শিক্ষার্থীদের পুনর্মিলনী

গাইড বই পড়ানো ও কোচিংয়ে বাধ্য করা শিক্ষকের কাজ হতে পারে না–শিক্ষামন্ত্রী ডা. দীপু মনি এমপি

১৮ জানুয়ারি ২০২০, ৩:৩৫:৪৩

গাইড বই পড়ানো এবং কোচিং করতে বাধ্য করা কোনো শিক্ষকের কাজ হতে পারে না বলে মন্তব্য করেছেন শিক্ষামন্ত্রী ডা. দীপু মনি এমপি। শুক্রবার (১৭ জানুয়ারি) বিকালে চাঁদপুরের মতলব উত্তর উপজেলার লুধুয়া স্কুল এন্ড কলেজের প্রাক্তন শিক্ষার্থীদের পুনর্মিলনী অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন।

শিক্ষা মন্ত্রী বলেন, কিছু অসাধু শিক্ষকের সাথে নোট-গাইড বই প্রস্তুতকারীদের যোগসাজশ রয়েছে। তারা কমিশন নিয়ে পছন্দের নোট-গাইড বই কিনতে ছাত্রছাত্রীদের উৎসাহিত করছেন। এছাড়া অনেক শিক্ষক শিক্ষার্থীদের প্রাইভেট ও কোচিংয়ে আসতে বাধ্য করছেন। কোনো শিক্ষার্থীকে নোট-গাইড বই পড়তে উৎসাহিত করা, প্রাইভেট-কোচিংয়ে আসতে বাধ্য করা এবং কোচিংয়ে না আসলে ফেল করানো শিক্ষকের কাজ হতে পারে না।

শিক্ষার্থীদের শুধু ভালো ফল করলেই হবে না জানিয়ে মন্ত্রী বলেন, তাদের নৈতিকতা, মানবতা, দেশপ্রেম, সততা ও নিষ্ঠা শেখাতে হবে। তাদের সুনাগরিক হিসেবে গড়ে তুলতে হবে। শিক্ষকদের কাছ থেকে শিক্ষার্থীরা সঠিক শিক্ষা পেয়ে সুনাগরিক হিসেবে গড়ে উঠবে। তাহলে আমরা সারাবিশ্বে মাথা উঁচু করে মর্যাদা নিয়ে দাঁড়াতে পারব। কোনো দেশের কারো কাছে আমাদের মাথা নত করতে হবে না।

মন্ত্রী শিক্ষকদের উদ্দেশে বলেন, শিক্ষকতা একটি মহান পেশা। শিক্ষকদের মর্যাদা তাদের নিজেদেরই ধরে রাখতে হবে। এ দুুর্নাম যেন আমাকে আর শুনতে না হয়। আমরা এ দুুর্নাম থেকে মুক্তি পেতে চাই। শ্রেণিকক্ষে পাঠ্যবই যত্ন সহকারে শেখানো হলে, পাঠদানে অযত্ন অবহেলা না হলে শিক্ষার্থীদের নোট বই, গাইড বই ও প্রাইভেট-কোচিংয়ের ওপর নির্ভরশীল হতে হবে না।

দীপু মনি বলেন, শেখ হাসিনার নেতৃত্বে বাংলাদেশ গত ১০ বছরে শিক্ষা খাতে ব্যাপক অগ্রগতি অর্জন করেছে। এ অর্জনের ওপর ভিত্তি করে আগামী দিনে আরও বহুদূূর এগিয়ে যেতে হবে। এ জন্য শিক্ষার মান আরও উন্নত করতে হবে। সে ক্ষেত্রে সব শিক্ষক-শিক্ষার্থী ও অভিভাবকদের সহযোগিতা প্রয়োজন।

পুনর্মিলনী উদযাপন কমিটির আহবায়ক ডা. এমদাদুল হক মানিক সভাপতিত্বে এবং সদস্য সচিব শাহেন শাহ মাহমুুদ এর সঞ্চালনায় আলোচনা সভায় বিশেষ অতিথি হিসাবে বক্তব্য রাখেন, চাঁদপুর-২ নির্বাচনী আসনের সংসদ সদস্য আলহাজ্ব এ্যাড. নুরুল আমিন রুহুল, পরিকল্পনা কমিশনের সিনিয়র সচিব শামসুল আলম মোহন, চাঁদপুরের পুলিশ সুপার মাহবুবুর রহমান পিপিএম, চাঁদপুরের জেলা প্রশাসক (ভারপ্রাপ্ত) এসএম জাকারিয়া, মতলব উত্তর উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান মুক্তিযোদ্ধা এমএ কুদ্দুস, লুধুয়া স্কুল এন্ড কলেজের অধ্যক্ষ জাকির হোসেন প্রমুখ।

ঐতিহ্যবাহী লুধুয়া স্কুল এন্ড কলেজের সৃষ্টির ৬২ বছরে আয়োজন করা হয়েছে প্রাক্তন শিক্ষার্থীদের সর্বোবৃহৎ মিলন মেলার। বিদ্যালয়টির এক ঝাঁক তরুণ প্রাক্তন শিক্ষার্থীরা এ মিলন মেলার আয়োজন করেছে। প্রতিষ্ঠানটির এ আয়োজনে পুনর্মিলনী ঘটছে কয়েক হাজার প্রাক্তন শিক্ষার্থীর।
অনুষ্ঠানের সর্বশেষ ঢাকা থেকে আমন্ত্রিত নামীদামী শিল্পিরা সঙ্গীত পরিবেশন করেন।

দৈনিক আলোর প্রতিদিন এর প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।

পাঠকের মতামত: