fbpx
প্রচ্ছদ / জাতীয় / বিস্তারিত

জাতীয় সংসদের দক্ষিণ প্লাজায় নেয়া হচ্ছে খোকার মরদেহ

৭ নভেম্বর ২০১৯, ১০:২৭:৪৯

ঢাকায় এসে পৌঁছার পর জাতীয় সংসদ ভবনের দক্ষিণ প্লাজায় নেয়া হচ্ছে ঢাকা সিটি করপোরেশনের সাবেক মেয়র, বিএনপির ভাইস চেয়ারম্যান, সাবেক মন্ত্রী ও বীর মুক্তিযোদ্ধা সাদেক হোসেন খোকার মরদেহ।

আজ বৃহস্পতিবার সকাল সাড়ে আটটার দিকে রাজধানীর শাহজালাল বিমানবন্দরে এসে পৌঁছায় খোকার মরদেহ। আনুষ্ঠানিকতা সেরে সকাল নয়টার পর তাঁর মরদেহ নিয়ে একটি অ্যাম্বুলেন্স জাতীয় সংসদ ভবনের দক্ষিণ প্লাজায় রওনা দেয়।

আজ সকাল ১১টায় জাতীয় সংসদের দক্ষিণ প্লাজায় খোকার প্রথম জানাজা হবে। পরে সর্বস্তরের মানুষের শ্রদ্ধা নিবেদনের জন্য দুপুর ১২টা থেকে ১টা পর্যন্ত কেন্দ্রীয় শহীদ মিনারে কফিন রাখা হবে। বাদ জোহর নয়াপল্টনে দলীয় কার্যালয়ের সামনে অনুষ্ঠিত হবে দ্বিতীয় জানাজা। বিকেল ৩টায় ঢাকা দক্ষিণ সিটি করপোরেশনে তৃতীয় দফা জানাজা শেষে খোকার মরদেহ নেওয়া হবে গোপীবাগে তাঁর নিজ বাসভবনে। বাদ আসর স্থানীয় ধূপখোলা মাঠে অনুষ্ঠিত হবে চতুর্থ দফা নামাজে জানাজা। পরে তাঁর লাশ জুরাইন কবরস্থানে বাবা-মায়ের পাশে দাফন করা হবে।

আজ সকাল সাড়ে আটটার দিকে খোকার মরদেহ ঢাকায় এসে পৌঁছায়। মরদেহের সঙ্গে একই ফ্লাইটে খোকার স্ত্রী ইসমাত হোসেন, বড় ছেলে ইশরাক হোসেন, ছোট ছেলে ইসফাক হোসেন, মেয়ে সারিকা সাদেকসহ বিএনপি চেয়ারপারসনের উপদেষ্টা ও অবিভক্ত ঢাকা সিটি কপোরেশনের সাবেক ডেপুটি মেয়র আব্দুস সালাম ঢাকায় এসেছেন।

রাজধানীর জুরাইন কবরস্থানে বাবা-মায়ের কবরের পাশে দাফন করা হবে। এর আগে তাঁর চার দফা জানাজা অনুষ্ঠিত হবে।

এর আগে খোকার মরদেহ নিয়ে পরিবারের সদস্যরা এমিরেটস এয়ারলাইনসের ইকে ২০২ নম্বর ফ্লাইটে স্থানীয় সময় মঙ্গলবার রাত ১১টা ২০ মিনিটে নিউ ইয়র্ক থেকে দুবাইয়ের পথে রওনা দেন। সেখান থেকে একই এয়ারলাইনসের ইকে ৫৮২ নম্বর ফ্লাইটে আজ সকালে ঢাকায় হযরত শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে পৌঁছায়।

সোমবার বাংলাদেশ সময় দুপুর ১টা ৫০ মিনিটে নিউইয়র্কের একটি হাসপাতালে মারা যান মুক্তিযোদ্ধা, অবিভক্ত ঢাকার সাবেক মেয়র ও বিএনপির ভাইস চেয়ারম্যান সাদেক হোসেন খোকা। দীর্ঘ পাঁচ বছর ক্যান্সারের সঙ্গে লড়ে যুক্তরাষ্ট্রের নিউ ইয়র্কের ম্যানহাটানে স্লোয়ান ক্যাটারিং ক্যান্সার সেন্টারে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মারা যান তিনি। তাঁর বয়স হয়েছিল ৬৭ বছর। তিনি স্ত্রী ইসমত হোসেন, মেয়ে সারিকা সাদেক ও ছেলে ইশফাক হোসেনকে রেখে গেছেন।

দৈনিক আলোর প্রতিদিন এর প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।

পাঠকের মতামত: