fbpx
প্রচ্ছদ / শিক্ষা / বিস্তারিত

জাবিতে আন্দোলন: হল না ছাড়লে ব্যবস্থা (ভিডিওসহ)

৬ নভেম্বর ২০১৯, ১২:৩৫:৫৪


জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ে (জাবি) উপাচার্য অধ্যাপক ফারজানা ইসলামের অপসারণ দাবিতে আন্দোলন চলছে। এরই প্রেক্ষিতে বিশ্ববিদ্যালয় বন্ধ ঘোষণা করা হয়েছে। আজ বুধবার সকাল থেকে ক্যাম্পাসে অবস্থান নিয়েছেন আন্দোলনকারীরা। যেকোনো অনাকাঙ্ক্ষিত পরিস্থিতি এড়াতে বিশ্ববিদ্যালয়ের কয়েকটি স্থানে বিপুলসংখ্যক পুলিশ মোতায়েন করা হয়েছে।

আজ সকাল ৯টায় বিশ্ববিদ্যালয়ের মুরাদ চত্বর থেকে আন্দোলনকারীরা একটা বিক্ষোভ মিছিল বের করেন। মিছিলটি পুরো ক্যাম্পাস প্রদক্ষিণ করে। মিছিলটি পুরাতন প্রশাসনিক ভবনের উপাচার্যের কার্যালয়ের সামনে এসে শেষ হয়। এ সময় উপাচার্যবিরোধী শ্লোগান দেওয়া হয় এবং গতকাল আন্দোলনকারীদের ওপর ছাত্রলীগের হামলার বিচারের দাবি তোলা হয়। উপাচার্য অধ্যাপক ফারজানা ইসলামের অপসারণ চেয়ে নানা ধরনের শ্লোগান দেওয়া হয়। উপাচার্যের কার্যালয়ের সামনের সড়কে অবস্থান নিয়ে সংহতি সমাবেশ করছেন আন্দোলনকারীরা। সেখানে সবাই বক্তব্য দিচ্ছেন। নিজেদের দাবি-দাওয়ার কথা তুলছেন।

এর আগে গতকাল মঙ্গলবার উপাচার্যের অপসারণ দাবিতে আন্দোলনরত শিক্ষক-শিক্ষার্থীদের ওপর হামলা চালায় ছাত্রলীগ। গতকাল দুপুর ১২টার দিকে উপাচার্যের বাসভবনের সামনের এ হামলায় আন্দোলনকারী শিক্ষক-শিক্ষার্থীসহ বেশ কয়েকজন আহত হয়েছেন। এরপর বিশ্ববিদ্যালয়ের জরুরি সিন্ডিকেট সভায় অনির্দিষ্টকালের জন্য ক্যাম্পাস বন্ধ ও শিক্ষার্থীদের বিকেল সাড়ে ৪টার মধ্যে হল ছাড়ার নির্দেশ দেওয়া হয়। তবে পরে নির্দেশনা সংশোধন করে বুধবার সকাল ৮টার মধ্যে হল ছাড়ার নির্দেশ দেওয়া হয়েছে।

তবে কিছু সাধারণ শিক্ষার্থীরা হল ছাড়লেও ছাত্রলীগের নেতাকর্মীরা হল ত্যাগ করেননি বলে জানায় সূত্র। এ বিষয়ে বিশ্ববিদ্যালয়ের হল প্রাধ্যক্ষ কমিটির সভাপতি অধ্যাপক বশির আহম্মেদ জানান, নির্দেশ মোতাবেক যদি কেউ হল ছেড়ে না যায় তবে আমরা পানি, বিদ্যুৎ ও গ্যাসের লাইন বন্ধ করে দেবো। পাশাপাশি প্রয়োজন মনে করলে আমরা হল খালি করতে পুলিশের সহায়তা নেবো। হলে কাউকেই থাকতে দেওয়া হবে না। সুত্র ঃ কালের কন্ঠ

দৈনিক আলোর প্রতিদিন এর প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।

পাঠকের মতামত: