করোনা লাইভ
আজকে আক্রান্ত : ২,৬৩৫ ◈ আজকে মৃত্যু : ৩৫ ◈ মোট সুস্থ্য : ১৩,৩২৫
প্রচ্ছদ / জাতীয় / বিস্তারিত

মো. দ্বীন ইসলাম

চাঁদপুর প্রতিনিধি

মতলব উত্তরের ফতেপুর পূর্ব ইউপিতে অসহায়দের মাঝে চাল বিতরণকালে

আপনার সাহায্যের হাতটি মানুষের মৃত্যুর কারন হতে পারে–এমএ কুদ্দুস

২৮ মার্চ ২০২০, ৩:৩৫:৪৩

সম্প্রতি করোনা ভাইরাসের হানায় যখন সারা বিশ্ব মৃত্যকূপে পরিনত, তখন বাংলাদেশে তার ভয়াবহতা বৃদ্ধির আশঙ্কা রোধে ২৬ মার্চ থেকে ৪ এপ্রিল সকল অফিস আদালত দোকান পাঠ বন্ধ’সহ জনগনকে ঘরে অবস্থান করার নির্দেশ দেয়ায়, খেটে খাওয়া দিন মজুরদের অবস্থা নাজুক দেখা দিয়েছে। তাই তাদের খাদ্য সংকট নিরসনে চাল বিতরণের ব্যবস্থা করেছে চাঁদপুরের মতলব উত্তর উপজেলা প্রশাসন।
শনিবার (২৮ মার্চ) সকালে চাঁদপুর জেলা প্রশাসনের নির্দেশে উপজেলার ফতেপুর পূর্ব ইউনিয়নে (করোনা ভাইরাসের কারনে) সামাজিক দূরত্ব বজায় রেখে চাল বিতরণ করেন উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান ও উপজেলা আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক বীর মুক্তিযোদ্ধা এম এ কুদ্দুস।
বিতরণকালে উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান ও উপজেলা আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক বীর মুক্তিযোদ্ধা এম এ কুদ্দুস বলেছেন, দেশে পর্যাপ্ত খাদ্য মজুদ আছে। ভোক্তাদের আতঙ্কিত হওয়ার কিছু নেই। করোনায় আতঙ্কিত হয়ে বাজারের ওপর চাপ সৃষ্টি না করতে সবার প্রতি আহ্বান জানান তিনি।
তিনি আরো বলেন, আতঙ্কগ্রস্ত না হয়ে যার যতটুকু প্রয়োজন সেইটুকু আপনারা সংগ্রহ করেন। এই কারণে বাজারের ওপর চাপ সৃষ্টি করা হলে বাজার জিনিসের দাম বাড়িয়ে দেয়। এতে যার টাকা আছে সে হয়তো কিনতে পারছেন কিন্তু যারা সীমিত আয়ের তাদের জন্য তো এত কেনা সম্ভব না, তাদের কষ্ট হয়ে যায়। অন্যকে এভাবে কষ্ট দেয়ার অধিকার কারও নাই। অহেতুক আতঙ্কগ্রস্ত হয়ে বাজারের ওপর চাপ সৃষ্টি করা, আর জিনিসপত্রের মজুদ কারো করা উচিত না। কাজেই সবাই স্বাভাবিকভাবে জীবনযাপন করতে পারেন।
তিনি সকলের উদ্দেশ্যে বলেন, নিজের স্বাস্থ্য সম্পর্কে সচেতন হতে হবে। হাঁচি, কাশি আসলে কাপড় দিয়ে নাক ঢেকে রাখতে হবে বা কনুই দিয়ে হাতটা ডেকে রাখা অথবা যেখানে সেখানে না যাওয়া। আর বিদেশ থেকে যারা আসছেন তারা এখানে সেখানে ঘুরে বেড়াবেন না। কারণ আপনিতো নিজে সংক্রামিত হতে পারেন, নিজের পরিবারকে করবেন আবার আরও ১০ জনের মাঝে ছড়াবেন। কাজেই অন্যর জীবনকে এভাবে বিপদগ্রস্ত করা মোটেই সমীচীন নয়। সবাই এ ব্যাপারে সচেতন হবেন এটাই চাই।
এমএ কুদ্দুস বিভিন্ন সামাজিক সংগঠন বর্তমানে করোনা ভাইরাসের সাহায্য প্রদান করছেন তাদের উদ্দেশ্যে বলেন, শুধু মানুষের পাশে দাড়ালেই হবেনা, সঠিক নিয়ম আনুসরন করতে হবে, সামাজিক দূরত্ব বজায় রেখে বিতরণ কার্যক্রম চালাতে হব। বিতরণের পূর্বে নিজেকে এবং বিতরণ সামগ্রী জীবানুমুক্ত কিনা তা অব্যশই নিশ্চিত করতে হবে, তারপর সঠিক নিয়মে বিতরণ করতে হবে। করোনা ভাইরাস জিবাণুটি মারাত্নক ছোঁয়াচে এবং ধাতুতে কয়েক দিন বেঁচে থাকতে পারে সুতরাং জিবাণুনাশক আবশ্যক। তাই সঠিক উপায়ে বিতরণ করুন বা দায়িত্ববান কাউকে বিতরণে সহায়তা করুন। আপনার সাহায্যের হাতে যদি জিবাণুসংক্রামন করে তাহলে সে হাতটি মানুষের মৃত্যুর কারন হতে পারে।
বাহিরে অযথা না ঘোরার পরামর্শ দিয়ে ইউএনও এ এম জহিরুল হায়াত বলেন, বাহিরে ঘোরাঘুরি না করে যতদূর সম্ভব নিজের ঘরে থাকেন। আর নিজেকে, পরিবার ও সাধারণ মানুষকে সুরক্ষিত রাখেন। সেটাই আমি আশা করি। সবাই ঘরে বসেই দোয়া করেন, যাতে এই রোগ থেকে মানবজাতি মুক্তি পায়। তিনি আরো বলেন, সকলেই ভিটামিন সি বেশি করে খাবেন। এখন ভিটামিন সির অনেক কিছুই বাজারে আছে। টমেটো, কমলালেবু, মৌসুমী ফল, টক জাতীয় ফল বেশি বেশি খাওয়া। এটা প্রচুর খেলে করোনা ভাইরাসের প্রতিরোধক শক্তি শরীরের মাঝে জমা হবে।
বিতরণকালে উপজেলা প্রকল্প বাস্তবায়ন কর্মকর্তা আওরঙ্গজেব, ফতেপুর পূর্ব ইউপি চেয়ারম্যান আজমল হোসেন চৌধুরী, সিএ আমিনুল ইসলাম, ইউপি সচিব দেওয়ান আ. ওহাব, উপস্থিত ছিলেন।
উল্লেখ্য ফতেপুর পূর্ব ইউনিয়নের জন্য ১ মেট্টিক টন চাল বরাদ্ধ দেয়া হয়েছে। প্রতি পরিবারকে ২০ কেজি করে ৫০পরিবারের মাঝে এ চাল বিতরণ করা হয়।

দৈনিক আলোর প্রতিদিন এর প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।

পাঠকের মতামত: