করোনা লাইভ
আজকে আক্রান্ত : ৪০৭ ◈ আজকে মৃত্যু : ৫ ◈ মোট সুস্থ্য : ৪৯৬,১০৭
প্রচ্ছদ / রাজনীতি / বিস্তারিত

নাজিরপুরে যুবলীগ নেতাদের উপর হামলা

২০ জানুয়ারি ২০২১, ৩:৪৯:৩৪

জালিস মাহমুদ,পিরোজপুর প্রতিনিধিঃ পিরোজপুরের নাজিরপুরে রনি হাওলাদার (২৮) ও মিজানুর রহমান মিঠু (৩২) নামের দুই যুবলীগ নেতার হাত-পা ভেঙ্গে দেয়া সহ মো. ফারুক হওলাদর (৩৫) নামের তিন যুবলীগ নেতাকে পিটিয়ে গুরুতর আহত করেছে সন্ত্রাসীরা।

জানা যায়, ১৯ জানুয়ারী (মঙ্গলবার) রাত সাড়ে ৯টার দিকে উপজেলার শ্রীরামকাঠী ইউনিয়নের ভীমকাঠী এলাকায়। গুরুতর আহত রনি হাওলাদার ও মিজানুর রহমান মিঠুকে ওই রাতের সাড়ে ১২টার দিকে উন্নত চিকিৎসার জন্য খুলনা মেডিকেল কলেজ হাসপাতারে প্রেরণ করা হয়েছে।

আহত রনি হাওলাদার উপজেলার শ্রীরামাকাঠী বন্দরের মৃত জব্বার হাওলাদারের ছেলে ও শ্রীরামকাঠী ইউনিয়ন যুবলীগের সহ সভাপতি, মিজানুর রহমান মিঠু বন্দরের মৃত চুন্নু মিয়ার ছেলে ও ইউনিয়ন যুবলীগের সভাপতি এবং বন্দর ব্যবসায়ী সমিতির সাধারণ সম্পাদক এবং ফারুক হওলাদার শ্রীরামকাঠী ইউনিয়নের চলিশা গ্রামের মৃত বেলায়েত হোসেন হাওলাদরের ছেলে ও উপজেলা যুবলীগ সহ সভাপতি।

হামলায় আহত ফারুক হাওলাদার জানান, মঙ্গলবার রাতে তারা ৩ জনে একটি মোটর সাইকেলে করে দলীয় কাজ শেষে নাজিরপুর থেকে শ্রীরামকাঠী বন্দরের দিকে যাচ্ছিলেন। এ সময় শ্রীরামাকাঠী বন্দরের কাছাকাছি ভীমকাঠীর বালা বাড়ির কাছে পৌঁছলে মোটর সাইকেলের আলোতে দেখতে পান সড়কের উপর গাছের গুড়ি ফেলা। সেখানে পৌঁছতেই রাস্তার দু’পাশে দেশীয় অস্ত্র নিয়ে থাকা উপজেলা স্বেচ্ছাসেবক লীগের যুগ্ম-আহবায়ক মো. আরিফুর রহমান সবুজ, স্থানীয় মহিউদ্দিন, এনামুল বেপারী, সাইফুল বেপারী, জনি হাওলাদার, বিপ্লব শেখ, লিয়ন, তুফান ও অন্তু শেখের নেতৃত্বে প্রায় ২৫/৩০ সন্ত্রাসী দা, লোহার রড সহ দেশীয় অস্ত্র নিয়ে পূর্ব পরিকল্পিতভাবে হত্যার উদ্দেশ্যে হামলা চালায়।

উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের কর্তব্যরত চিকিৎসক ইশিতা সাধক নিপু জানান, হামলায় মিজানুর রহমান মিঠুর বাম হাত-পা ও ডান পা ভেঙ্গে গেছে। এ ছাড়া তার মাথায় ধারালো অস্ত্রের আঘাতে গুরুতর হাড় ভাঙ্গা জখম রয়েছে। রনির দু’ হাত-পা ভেঙ্গে গেছে। তার মাথায়ও ধারালো অস্ত্রের আঘাতে গুরুতর হাড়ভাঙ্গা জখম রয়েছে। তার নাক-মুখেও আঘাত রয়েছে। গুরুতর আহত দু’জনকে উন্নত চিকিৎসার জন্য খুলনা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে প্রেরণ করা হয়েছে।

থানার অফিসার ইন চার্জ মো. আশ্রাফুজ্জামান জানান, ঘটনাটি শুনে রাতেই সেখানে পুলিশ পাঠানো হয়েছে। জেলা পুলিশের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (সদর সার্কেল) থান্দার খাইরুল ইসলাম সেখানে পরিদর্শন করেছেন। এ ঘটনায় এখনো মামলা দায়েরের প্রস্তুতি চলছে।

দৈনিক আলোর প্রতিদিন এর প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।

পাঠকের মতামত: