করোনা লাইভ
আজকে আক্রান্ত : ০ ◈ আজকে মৃত্যু : ০ ◈ মোট সুস্থ্য : ৪৯৭,৭৯৭
প্রচ্ছদ / সারাদেশ / বিস্তারিত

স্বামী’সহ ৫ জনকে আসামী করে থানায় মামলা দায়ের

সোনাইমুড়িতে যৌতুকের জন্য প্রাণ দিতে হলো গৃহবধু তৃষ্ণা রানীর

২৩ ফেব্রুয়ারি ২০২১, ৪:৪৬:৫০

সোনাইমুড়ি থানার নাওতলা মালিবাড়ি নিবাসী নিত্যানন্দ দাশের ছেলে সমর দাশের কাছে গত ৮ মাস পূর্বে কুমিল্লার মনোহরগঞ্জ উপজেলার নাথেরপেটুয়া ইউনিয়নের নাথেরপেটুয়া গ্রামের ফার্নিচার মিস্ত্রি মিঠু সাহার একমাত্র কন্যা তৃষ্ণা রানীর পারিবারিক ভাবে বিয়ে বন্ধনে আবদ্ধ হয়।

কিন্তু সেই সংসারে অল্প কিছু দিনের মধ্যেই নেমে আসে যৌতুকের কালো থাবা। বেশ কয়েকবার যৌতুকের জন্য নিহত তৃষ্ণা রানী কে স্বামী ও শ্বশুরবাড়ির লোকজনরা মিলে অমানবিক ভাবে নির্যাতন করে আসছে। তার ই ধারাবাহিকতায় গত ২১জানুয়ারী ২০২১ তারিখে ৩ মাসের অন্তঃসত্বা তৃষ্ণা রানিকে পেটে লাথি মেরে মার ধর করার সময় নিহত তৃষ্ণা রানীর পেটের সন্তান নষ্ট হয়ে যায়।

তারপরও দরিদ্র ফার্নিচার মিস্ত্রি বাবার যতটুকু সাধ্য ছিলো সেই সাধ্য মতো মেয়ে জামাই এর আবদার মিটিয়ে আসছিলো।
বিয়ের সময় ও বিয়ের আগে পরে জামাইয়ের আবদার মিটাতে দরিদ্র বাবাকে হাত পাততে হয়েছিলো সমাজের বিত্তবানদের কাছে। কিন্তু শেষ আবদার হিসেবে মেয়ের জামাই আবারো ২ লক্ষ টাকা দাবী করলে তা দিতে অপারগতা জানায় নিহত তৃষ্ণা রানীর বাবা মিঠু সাহা।

আর সেই রাগে জেদে স্বামী ও তার শ্বশুরবাড়ির লোকজন মিলে গত ২১-০২-২০২১ তারিখ বিকেলে পাশবিক, বর্বর ভাবে নির্যাতন করে পায়ের রগ কেটে হত্যা করে তৃষ্ণা রানীকে। এই ঘটনায় নিহতের বাবা বাদী হয়ে গত ২২ ফেব্রুয়ারী ২০২১ তারিখে নিহতের স্বামী সমর দাশ’সহ ৬ জনের নাম উল্লেখ করে ও অজ্ঞাত ২-৩ জনকে আসামী করে সোনাইমুড়ি থানায় মামলা করেছেন। মামলা নং ২৪ এ উল্লেখিত ধারা ৩০২/৩৪।
মামলায় উল্লেখিত অভিযুক্তরা হলেন :
নিত্যানন্দ দাশের ছেলে সমর দাশ (২৫), বিশ্বজিত দাশ (৩০), আদ্যনাথ দাশের ছেলে নিত্যানন্দ দাশ (৬৫), নিত্যানন্দ দাশের স্ত্রী গায়েত্রী রানি দাশ (৫৮), বিশ্বজিত দাশের স্ত্রী পূজা দাশ (২০), সুভাষ চন্দ দাশের স্ত্রী লক্ষী রানী দাশ (৩৫)

পুলিশ তৎক্ষনাত অভিযান চালিয়ে স্বামী সহ ৫ জনকে আটক করে আদালতে সোপর্দ করেন। হতদরিদ্র পিতা মিঠু ও তার পরিবার উক্ত ঘটনায় জড়িত সকল আসামীদের সর্বোচ্চ শাস্থি দাবী করেন।

দৈনিক আলোর প্রতিদিন এর প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।

পাঠকের মতামত: