প্রচ্ছদ / রাজনীতি / বিস্তারিত

পটুয়াখালী-৪ আসনে জনপ্রিয়তার শীর্ষে আলহাজ্ব মো. মাহবুবুর রহমান এমপি

৬ নভেম্বর ২০১৮, ৩:৪১:৩৯

দেশের অবহেলিত দক্ষিণাঞ্চলের উন্নয়নের অন্যতম রূপকার পটুয়াখালী-৪ কলাপাড়া ও রাঙ্গাবালী উপজেলা এবং মহিপুর থানা নির্বাচনী এলাকার তিনবার বিশাল ব্যবধান নিয়ে নির্বাচিত সংসদ সদস্য বাংলাদেশ সরকারের সাবেক সফল পানি সম্পদ প্রতিমন্ত্রী বাংলাদেশ আওয়ামী স্বেচ্ছাসেবকলীগের সাবেক সহ-সভাপতি, বর্তমান কলাপাড়া উপজেলা আওয়ামীলীগের সম্মানিত সভাপতি , ত্যাগী ও জনপ্রিয় রাজনীতিবিদ গরীব মেহনতী মানুষের বন্ধু সকল নৌকা প্রিয় মানুষের আশ্রয় স্থান, শেখ হাসিনার অত্যন্ত আস্থাশীল ও স্নেহ ধন্য জননেতা মো. মাহবুবুর রহমান আগামী একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে দলের তৃণমূল থেকে সকল পর্যায়ে নেতাকর্মীদের সমর্থীত মনোনয়ন প্রার্থী হিসেবে অপ্রতিদ্বন্দ্বী, বিকল্পহীন ও একক নেতা হিসেবে পরিচিতি লাভ করেছেন।

কলাপাড়া, রাঙ্গাবালী উপজেলা ও মহিপুর থানার স্থানীয় সকল আওয়ামীলীগের শীর্ষ নেতৃবৃন্দ মনে করেন যে, একাধারে ৮ম, ৯ম ও ১০ম জাতীয় সংসদ নির্বাচনে মো. মাহবুবুর রহমান এমপি নির্বাচিত হয় এবং একবার প্রতিমন্ত্রী হওয়ার পরে দুই উপজেলায় ব্যাপক দৃশ্যমান উন্নয়ন কর্মকান্ডে তার সমর্থন ও জন প্রিয়তা অনেক বৃদ্ধি পেয়েছে।

মনোনয়ন প্রত্যাশী একাধিক প্রার্থীরা এই জনপদে দলের নেতাকর্মীদের এবং নিরীহ ভোটারদের কাছে তেমন গ্রহণ যোগ্যতা অর্জন করতে পারেননি। মো. মাহবুবুর রহমান এমপি গত ১৫ বছরে সততা ও নিষ্ঠার সাথে দুই উপজেলায় অভাবনীয় উন্নয়ন করেছেন।

তিনি ছাত্র জীবন থেকে জাতির জনক বঙ্গবন্ধুর আদর্শ এবং আওয়ামীলীগের সাধারণ কর্মী হয়ে রাজনীতি করে নিজ এলাকায় ব্যাপক জন সমর্থন অর্জন করেছেন।

বিশেষ করে ২০০৮ ও ২০১৪ সালে ৯ম ও ১০ম সংসদ নির্বাচনে বিজয়ী হয়ে দুই উপজেলায় দৃশ্যমান উন্নয়ন করেছে যা চিরদিন মানুষ স্মরণ করবে।

বিভিন্ন সরকারি অফিস সূত্র মতে তাঁর নির্বাচনী এলাকায় প্রায় শতাধিককিলোমিটার কাঁচা রাস্তা পাকাকরণ অনেকগুলো আধুনিক বহুতল সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় নির্মান, কলাপাড়া মহিলা কলেজ ও কলাপাড়া মোজাহারউদ্দিন বিশ্বাস ডিগ্রি কলেজের বহুতল শ্রেণিকক্ষ বিল্ডিং নির্মাণ, কলাপাড়া মোজাহারউদ্দিন বিশ্বাস কলেজ ও কলাপাড়া মডেল হাইস্কুলকে সরকারিকরণ করা, মুক্তিযুদ্ধা সংসদ ভবন নির্মাণ, বঙ্গবন্ধু কমপ্লেক্স, শেখ কামাল অডিটোরিয়াম এবং কলাপাড়া থেকে কুয়াকাটা শেখ কামাল, শেখ জামাল, শেখ রাসেল ও বালিয়াতলী নদীর উপর সৈয়দ নজরুল ইসালাম সেতু নির্মাণ, মেঘা প্রকল্প পায়রা পোর্ট ১৩২০ মেঘাওয়াট বিদ্যুৎ প্রকল্প, অসংখ্য গার্ডার ব্রীজ, বহু সাইক্লোন শেল্টার নির্মাণ প্রায় পঞ্চাশ থেকে ষাট হাজার পরিবারে ঘরে ঘরে বিদ্যু সেবা প্রদান, স্কুল মাদ্রাসায় কম্পিউটার ল্যাপটপ ও হাজার হাজার প্রাথমিক শিক্ষার্থীকে টিফিন বক্স বিতরণ, হাট বাজার উন্নয়ন, ফায়ার সার্ভিস ষ্টেশন শিশুদের মিনিষ্টেডিয়াম নির্মাণ, কৃষকদের প্রণোদনাসহ সার বীজ উপকরণ বিতরণ করে ভোটারদের কাছে মো. মাহবুবর রহমান এর গ্রহণযোগ্যতা সবার চেয়ে বৃদ্ধিপেয়েছে।

এছাড়া বিএনপি জামাত শাসন আমলে নেতাকর্মীদের নির্যাতন অত্যাচারে কর্মীদের পাশে থাকাসহ সকল প্রকার আইনী সহায়তা দিয়েছেন বলে কলাপাড়া ও রাঙ্গাবালী উপজেলা সর্বস্তরের নৌকা প্রিয় জনগণ কৃতজ্ঞতা স্বীকার করেন। বর্তমানে বঙ্গবন্ধু কণ্যা শেখ হাসিনা সরকারের নানারকম উন্নয়ন কর্মযজ্ঞ ও দক্ষিণাঞ্চলের মেগা প্রকল্পগুলো জনগনের দ্বারপ্রান্তে পৌছে দেওয়ার জন্য চেষ্টা করে যাচ্ছেন।

মো. মাহবুবুর রহমান এমপি একাধিক জাতীয় পত্রিকার সংবাদ প্রতিনিধি এবং চ্যানেল আই তৃতীয় মাত্রার টক শোতে সাক্ষাৎকালে তিনি জানান, ছাত্র জীবন থেকে ছাত্রলীগ, আওয়ামীলীগের কর্মী ও এলাকার এমপি-মন্ত্রী নির্বাচিত হয়ে বঙ্গবন্ধুর স্বপ্নপূরণের জন্য সোনার বাংলা গড়ার লক্ষ্যে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা’র নেতৃত্বে মানুষের কল্যাণে তিনি কাজ করে যাচ্ছেন এবং জনগণের স্বার্থে আওয়ামীলীগের বহু অসমাপ্ত কাজগুলি এগিয়ে নেওয়ার জন্য তিনি মানুষের কাছে সহযোগিতা চেয়েছেন।

নৌকা প্রিয় মানুষের কাছে দুটি বিষয়ে মানুষের আস্থা অপরিসীম, বিশেষ করে তার নির্বাচনী এলাকা আইনশৃঙ্খলা স্বাভাবিক রাখা, চাঁদাবাজী সন্ত্রাস-মাস্তানি বন্ধ এবং দূর্নীতির জঙ্গীবাদ-এর বিরুদ্ধে তাঁর শক্ত অবস্থান ছিল।

তাই এই জনপদে মো. মাহবুবুর রহমান এমপি জনপ্রিয়তার শীর্ষে বা বিকল্প কোন নেতা এখনও এই জনপদে সৃষ্টি হয়নি।

দৈনিক আলোর প্রতিদিন এর প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।

পাঠকের মতামত: