fbpx
প্রচ্ছদ / খেলাধুলা / বিস্তারিত

চিন্তায় নিউজিল্যান্ড ও ইংল্যান্ড সমর্থকরা। টিকিটের জন্য হাহাকার তাদের মধ্যে।

ফাইনালের ৪১ শতাংশ টিকিটই ভারতীয় সমর্থকদের দখলে

১৪ জুলাই ২০১৯, ২:২৮:২১

ডি. এম. আরাফাত হোসাইন, স্পোর্টস ডেস্কঃ

বিশ্বকাপের দ্বিতীয় সেমিফাইনালে ইংল্যান্ড বনাম অস্ট্রেলিয়া ম্যাচে দেখা গিয়েছিল বেশ কিছু ভারতীয় সমর্থককে। সকলকে অবাক করে খালিও ছিল স্টেডিয়ামের একটা বড় অংশ। কারণ অনুসন্ধান করতে গিয়ে যা জানা গিয়েছে, তাতে অনেকেরই চক্ষু চড়কগাছ। জানা গিয়েছে, ভারত দ্বিতীয় সেমিফাইনাল খেলতে পারে ভেবে ভারতীয় সমর্থকরা কিনে রেখেছিলেন সেই ম্যাচের টিকিট। এমনকি সমর্থকরা ধরেই নিয়েছিলেন ভারত ফাইনালে যাবে। তাই আগে থেকেই ফাইনালের টিকিট কেটে রেখেছিলেন বহু সমর্থক। আইসিসি জানাচ্ছে, সংখ্যাটাও বিপুল, প্রায় ৪১ শতাংশ। অর্থাৎ ৩০ হাজার দর্শক আসনের মধ্যে প্রায় সাড়ে বারো হাজার আসন ভারতীয় সমর্থকদের দখলে থাকবে।

চিন্তায় নিউজিল্যান্ড ও ইংল্যান্ড সমর্থকরা। টিকিটের জন্য হাহাকার তাদের মধ্যে। আগেই আর্জি জানিয়ে ছিলেন কিউয়ি অলরাউন্ডার জেমস নিশাম। এ বার তাঁর সঙ্গে যুক্ত হলেন ইংল্যান্ডের পেসার স্টুয়ার্ট ব্রড। এক ইংল্যান্ড সমর্থক টুইটারে আর্জি জানান যে তিনি টিকিট পাচ্ছেন না। তাঁর আর্জি ইংল্যান্ড বোর্ডের কাছে পাঠান ব্রড। সবার আর্জি, ভারতীয় সমর্থকরা যদি তাঁদের টিকিটগুলো যথাযথ মূল্যে বিক্রি করেন, তা হলে উপকৃত হবেন ফাইনালিস্ট দুই দেশের সমর্থকরা।

এই টিকিট বিক্রির জন্য বেশ কিছু বেসরকারি অনলাইন প্লাটফর্ম রয়েছে। যার মাধ্যমে ফাইনালের টিকিট বিক্রি করা সম্ভব। এই অনলাইন প্লাটফর্মগুলি আইসিসি দ্বারা স্বীকৃত নয়। এবং এখানে বিক্রেতা নিজের ইচ্ছে মতো দাম ধার্য করতে পারে। সেই সুযোগটাই নিচ্ছেন আগে থেকে টিকিট কেটে রাখা ভারতীয় সমর্থকরা। প্রিয় দল যখন ফাইনালে নেই, তখন সেই টিকিট বিক্রি করে লাভের আশা করছেন তাঁরা। এবং সে আশা যে কতটা সফল, তার প্রমাণ, ভারতীয় মুল্যে একটি টিকিটের দাম ওই অনলাইন প্লাটফর্মে পৌঁছেছে ১,০৭,৭৪৩ টাকায়। পড়ে আছে মাত্র ১ শতাংশ টিকিট। ইংল্যান্ডে খেলার ক্ষেত্রে বিক্রিত টিকিট পুনরায় বিক্রি করা অপরাধ নয়। এই অতিরিক্ত দাম বিপদে ফেলছে কিউয়ি ও ইংলিশ সমর্থকদের। সেই জন্যেই ব্রড, নিশামরা আবেদন জানিয়েছেন, যাতে কম দামে টিকিট বিক্রি করা হয়।

যদিও আইসিসি যথেষ্ট নিশ্চিত যে, লর্ডসের ফাইনালে মাঠ ভর্তি থাকবেই। তাদের আশা, ভারতীয় ইংরেজরা, যাঁরা এত দিন ভারতের হয়ে গলা ফাটাচ্ছিলেন, তাঁরা ফাইনালে ইংল্যান্ডের জন্য গলা ফাটাবেন। সময়ই বলে দেবে আইসিসি-র এই আশা পূরণ হবে কিনা। আর কিছু ক্ষণ পরেই চার বছরের অপেক্ষার অবসান। ক্রিকেট বিশ্বকাপ উঠবে এমন কোনও দেশের হাতে যারা এর আগে কখনও এই স্বাদ পায়নি। অপেক্ষায় থাকবে সমর্থকরাও মাঠের মধ্যে এবং বাইরে।

দৈনিক আলোর প্রতিদিন এর প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।

পাঠকের মতামত: