প্রচ্ছদ / সারাদেশ / বিস্তারিত

বাংলাদেশে ধর্মীয় সম্প্রীতিকে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা সবচেয়ে বড় শক্তি মনে করেন-রমেশ চন্দ্র সেন

২০ ফেব্রুয়ারি ২০২০, ৯:১৭:১৬

তন্ময় শাহ্, ঠাকুরগাঁও জেলা প্রতিনিধি : বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের প্রেসিডিয়াম সদস্য ও ঠাকুরগাঁও-১ আসনের সংসদ সদস্য রমেশ চন্দ্র সেন বলেন, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বাংলাদেশকে সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতির অনন্য দৃষ্টান্ত হিসেবে বিশ্বে প্রতিষ্ঠিত করেছেন। ধর্ম যার যার, কিন্তু উৎসবটা সবার। আমরা সকলেই এটা মানি। এ দেশে আমরা যে কোন উৎসব ভাইবোনের মতো কাঁধে কাঁধ মিলিয়ে উদযাপন করি।

বৃহস্পতিবার বিকেলে সদর উপজেলার ঢোলারহাট ইউনিয়নের শ্রী শ্রী গৌরলাল চৌধুরী শিব মন্দিরের শুভ উদ্বোধন শেষে প্রধান অতিথির বক্তব্যে সংসদ সদস্য রমেশ চন্দ্র সেন এসব কথা বলেন।

ঠাকুরগাঁও এলজিইডির তত্ত্বাবধানে ৫৩ লক্ষ ৫২ হাজার ৫১৪ টাকা ব্যয়ে নর শ্রী শ্রী গৌরলাল চৌধুরী শিব মন্দিরের নির্মাণ কাজ সম্পন্ন করা হয়।

সংসদ সদস্য রমেশ চন্দ্র সেন বলেন, আওয়ামী লীগ সরকারের যথার্থ ও সময়োপযোগী পদক্ষেপের ফলে বাংলাদেশে আজ সর্বধর্মের মানুষের সহাবস্থান সুনিশ্চিত হয়েছে। বাংলাদেশকে বঙ্গবন্ধুর স্বপ্ন অনুযায়ী সোনার বাংলা হিসেবে গড়ে তোলার জন্য সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতির বর্তমান ধারা অব্যাহত রাখতে হবে।

তিনি বলেন, ধর্মীয় সম্প্রীতিকে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা সবচেয়ে বড় শক্তি মনে করেন। তাঁর নেতৃত্বে বর্তমান সরকার সব ধর্মের মানুষ যাতে পূর্ণ স্বাধীনতার মাধ্যমে যার যার ধর্ম পালন করতে পারে, সেই পরিবেশ নিশ্চিত করেছে। সব ধর্মের মানুষকেই সমান সুযোগ-সুবিধা দেওয়া হচ্ছে। আর এটাই হচ্ছে ধর্মনিরপেক্ষতা।

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে বাংলাদেশে ধর্মীয় ও সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতির যে অনন্য নজির স্থাপিত হয়েছে, এটি শুধু আওয়ামী লীগ সরকারের জন্য সম্ভব হয়েছে। আমরা চাই এ দেশে সবাই তার নিজ নিজ ধর্ম শান্তিতে পালন করবে।

রমেশ চন্দ্র সেন বলেন, স্বাধীনতা সংগ্রামে এবং মহান মুক্তিযুদ্ধের সময় শুধু মুসলমানরা নয়, আমাদের সবধর্মের মানুষ হিন্দু, বৌদ্ধ, খ্রিষ্টান সকলে মিলেই কাঁধে কাঁধ মিলিয়ে বুকের রক্ত ঢেলে এ দেশ স্বাধীন করে গেছেন। বাংলাদেশ লাখো শহীদের রক্তের বিনিময়ে অর্জিত এবং এই বাংলাদেশে জাতি ধর্ম বর্ণ নির্বিশেষে সকলে যার যার অধিকার নিয়েই বসবাস করবে, তাদের ধর্মকর্ম পালন করবে।

ঢোলারহাট ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান সীমান্ত কুমার বর্মনের সভাপতিত্বে সভায় অন্যান্যের মধ্যে বক্তব্য দেন, জেলা পরিষদের চেয়ারম্যান ও জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি মুহাম্মদ সাদেক কুরাইশী, সাধারণ সম্পাদক দীপক কুমার রায়, এলজিইডির নির্বাহী প্রকৌশলী কান্তেশ্বর বর্মন, জেলা পরিষদের সদস্য নজরুল ইসলাম স্বপন, রুহিয়া থানা আওয়ামী লীগের সভাপতি পার্থ সারথী সেন, সাধারণ সম্পাদক আবু সাঈদ বাবু, ঢোলারহাট ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতি অজিত কুমার রায়, সাধারণ সম্পাদক লুৎফর রহমান, রাজাগাঁও ইউনিয়ণ আওয়ামী লীগের সভাপতি নীপেন্দ্র নাথ ঝাঁ প্রমুখ।

এর আগে ৮৫ লক্ষ টাকা ব্যয়ে ঢোলারহাট বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়ের চারতলা ভিত বিশিষ্ট একতলা একাডেমিক ভবন নিমার্ণ কাজের ভিত্তি প্রস্তর স্থাপন করেন বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের প্রেসিডিয়াম সদস্য ও ঠাকুরগাঁও-১ আসনের সংসদ সদস্য রমেশ চন্দ্র সেন ।

দৈনিক আলোর প্রতিদিন এর প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।

পাঠকের মতামত: