fbpx

প্রদ্বীপ রায়

বীরগঞ্জ ( দিনাজপুর )

বীরগঞ্জে আলোকিত বীরগঞ্জ শিশু ফোরাম আয়োজিত শিশু সাংবাদিকতা প্রশিক্ষন।

২৪ এপ্রিল ২০১৯, ১০:৩৮:২৪

প্রদীপ রায়, বীরগঞ্জ (দিনাজপুর) প্রতিনিধি ॥
দিনাজপুরের বীরগঞ্জে আলোকিত বীরগঞ্জ শিশু ফোরাম আয়োজিত আজ সকাল ১১টায় ইয়াদ মিলনায়াতনে মোঃ নূরনবী ইসলামের সভাপত্বিতে দিনব্যাপী শিশু সাংবাদিকতার প্রশিক্ষনের আয়োজন করা হয়। উক্ত প্রশিক্ষনে শুরুতেই সৃষ্টিকর্তাকে স্মরণ করা হয়। এপির পক্ষে শ্রদ্ধেয় “রাইমন হাসদা” দাদা শিশুদের উদ্দেশ্যে কিছু কথা বলেন যাতে করে শিশুরা যেন প্রশিক্ষনটিতে এসে শিশু সাংবাদিকতা বিষয়ে কিছু হলেও জানতে পারে এবং পরবর্তীতে শিশু সাংবাদিকতা করতে পারে। উক্ত প্রশিক্ষনে সভাপতির শুভেচ্ছা বক্তব্যের পরেই প্রশিক্ষনের কার্যক্রম শুরু করা হয় । সভাপতি তার বক্তব্যে বলেন আলোকিত বীরগঞ্জ শিশু ফোরামকে মডেল হিসেবে দেখতে চাইলে সবাইকে একযোগে কাজ করতে হবে এবং সেই সাথে আরও বলেন আমাদের সকল কার্যক্রম গুলো আরও বিস্তার লাভ করার জন্য আমাদের একটি মাসিক ম্যাগাজিন বের করতে হবে। সেই ম্যাগাজিনে আমাদের সকল কার্যক্রমগুলো প্রতিবেদন আকারে প্রকাশ করা হবে। তাহলেই আমাদের সকল কার্যক্রমগুলো বিস্তার লাভ করবে এবং সবাই জানতে পারবে যে বীরগঞ্জে শিশু ফোরাম আছে এবং তারা কাজ করে।

সভাপতির বক্তব্যের পরেই প্রশিক্ষনের মূল আলোচনা শুরু করা হয়। উক্ত প্রশিক্ষনের মূল আলোচনা করেন শ্রদ্ধেয় মোঃ আব্দুর রাজ্জ্বাক,সম্পাদক “বীরগঞ্জ প্রতিদিন”। তিনি শিশুদের শিখিয়ে দেন কিভাবে একজন সাংবাদিক সংবাদ সংগ্রহ করে এবং একটা সংবাদের শিরোনাম কিভাবে লিখা হয়। কিভাবে লিখলে একটা সংবাদের শিরোনামটা অনেক সুন্দর হবে এবং পাঠকেরা আগ্রহের সাথে সেই সংবাদটি শুরু থেকে শেষ পর্যন্ত পড়বে। সেই সাথে তিনি আরও একটা বিষয় উল্লেখ করেন সবার সাথে সেটি হলো বাল্য বিবাহ, আসলে বর্তমান সমাজের জন্য এটি একটি অনেক বড় সমস্যা। তিনি সবাইকে বাল্যবিবাহ প্রতিরোধে কাজ করার জন্য উৎসাহ প্রদান করেন। একটি সংবাদে কি কি? বিষয় থাকলে তাকে সংবাদ বলা যাবে সেই বিষয়টি নিয়ে আলোচনা করেন। তিনি বলেন একটি সংবাদে ৬টি বিষয় অবশ্যই থাকা আবশ্যক (কি, কেন, কিভাবে, কোথায়, কখন, কে) তা-না হলে সেই সংবাদটিকে আর সংবাদ বলা যাবে না। তিনি আরও বলেন সংবাদ সংগ্রহের সময় অবশ্যই নিরপেক্ষ থাকতে হবে। আরও পক্ষ নিয়ে সংবাদ করা যাবে না, তিনি সবার সু-স্বাস্থ্য কামনা করে তিনি আর সাংবাদিকতার মূল গুরুপ্তপূর্ণ কথা শেষ করেন। তারপরে ঈ৪উ নিয়ে আলোচনা শুরু করেন উক্ত ঈ৪উ এর সভাপতি প্রদীপ রায় (জিতু) ।

তিনি বলেন ঈ৪উ কে আরও শক্তিশালী করার জন্য সবাইকে আরও ভালো ও একযোগে কাজ করতে হবে তাছাড়া ঈ৪উ কে উন্নত করা সম্ভব হবে না। তিনি সবাইকে লিখা দেওয়ার জন্য আহ্বান করেন। যাতে করে শিশু ফোরামের কার্যক্রম গুলো সবার মাঝে বিস্তার লাভ করে। তিনি বলেন বীরগঞ্জে যে ঈ৪উ আছে তা অনেকেই জানে না আর এটা না জানার কারণ হলো আমরা কেউ সচল না। আমরা সবাই অসল প্রকৃতীর । আমরা সবাই প্রশিক্ষন নিই ঠিক কিন্তু সেই প্রশিক্ষনকে আর কাজে লাগাই না। প্রশিক্ষন নেওয়ার পর সবাই কাজ করার পরিবর্তে চুপ করে বসে থাকি সেই প্রশিক্ষনকে কাজে লাগাই না। তার জন্যই আজ আমাদের এত অবনতী। আমাদের সকল কার্যক্রমগুলো ও ঈ৪উ কে আরও দৃঢ় ভাবে সাফল্য অর্জন করার জন্য আমাদের সবাইকে সময়রে কাজ সময়ে করতে হবে এবং আমরা যে প্রশিক্ষনটি নিচ্ছি তা যেন সবার মাঝে বিস্তার ঘটাতে পারি এই আশা ব্যক্ত করে ঈ৪উ এর সভাপতি তার বক্তব্য শেষ করেন। ঈ৪উ এর পরেই আলোকিত বীরগঞ্জ শিশু ফোরামের সভাপতি সবাইকে ধন্যবাদ জানিয়ে প্রশিক্ষনটির সমাপ্তি ঘোষনা করেন।

দৈনিক আলোর প্রতিদিন এর প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।

পাঠকের মতামত: