করোনা লাইভ
আজকে আক্রান্ত : ০ ◈ আজকে মৃত্যু : ০ ◈ মোট সুস্থ্য : ৬০২,৯০৮
প্রচ্ছদ / রাজনীতি / বিস্তারিত

অনৈতিক পন্থায় চাপিয়ে দেয়া কমিটি

মতলব উত্তরে ছাত্রদলের কমিটিকে অবাঞ্চিত ঘোষণা করল পদবঞ্চিতরা

৪ মার্চ ২০২১, ৮:০৮:১০

কেন্দ্রীয় ছাত্রদলের কমিটি কর্তৃক সদ্য ঘোষিত মতলব উত্তর উপজেলা ছাত্রদলের কমিটি নিয়ে ক্ষোভ ও অসন্তোষ প্রকাশ এবং অনৈতিক পন্থায় চাপিয়ে দেয়া কমিটিকে অবাঞ্চিত ঘোষণা জানিয়ে বিক্ষোভ মিছিল করে পদ বঞ্চিতরা।
বৃৃহস্পতিবার (৪ মার্চ) বিকেলে উপজেলার ফরাজীকান্দি ইউনিয়নে বিক্ষোভ মিছিল করেছে বঞ্চিতরা।

মাইজকান্দি বাজার মসজিদের সামনে থেকে বিক্ষোভ মিছিলটি শুরু হয়ে দক্ষিণ সরদারকান্দি বাজারে এসে শেষ হয়। এতে পদবঞ্চিত ছাত্রদলের কর্মীরা অংশ নেয়। মিছিল থেকে তারা ঘোষিত কমিটি বাতিল করে যোগ্যদের স্থান দেয়ার দাবি জানান। গত ৪ ফেব্রুয়ারী মতলব উত্তর উপজেলা ছাত্রদলের কমিটি অনুমোদন দেয় কেন্দ্রীয় ছাত্রদল।

এসব কমিটিতে ত্যাগীদের বাদ দেওয়া হয়েছে বলে অভিযোগ উঠেছে। টাকার বিনিময়ে ও স্বজনপ্রীতির মাধ্যমে বিবাহিত, মৎস্য ব্যবসায়ী, অছাত্র ও আন্দোলন সংগ্রামে ভূমিকাহীন লোকজনকে কমিটিতে আনা হয়েছে বলে অভিযোগ বঞ্চিতদের।

বিক্ষোভ মিছিল শেষে সংক্ষিপ্ত সভায় ফরাজীকান্দি ইউনিয়ন ছাত্রদল নেতা গাজ্জালী বলেন- কেন্দ্রীয় ছাত্রদলের অধীনে সম্প্রতি ঘোষিত মতলব উত্তর উপজেলা ছাত্রদলের কমিটিতে ৯০শতাংশ বিগত দিনে আন্দোলন সংগ্রামে রাজপথে ছিল না। অধিকাংশই অছাত্র ও বিবাহিত। কমিটি গুলোতে গুরুত্বপূর্ণ পদ সিন্ডিকেটের নেতারা বাগিয়ে নেয়ায় বাদ পড়েছেন অনেক কর্মীবান্ধব, ত্যাগী, পরিশ্রমী ও নির্যাতিত নেতা। যাদের কোন যোগ্যতাই নেই, তারা কমিটিতে থাকলে ছাত্রদল প্রশ্নবিদ্ধ হবে।

ছাত্রদল নেতা সুমন গাজী বলেন, বলেন, ‘যারা শহীদ জিয়ার আদর্শ বুকে ধারণ করে অন্যায়ের বিরুদ্ধে আন্দোলন-সংগ্রামে থেকে নির্যাতন, মামলা ও হামলার শিকার হয়ে রাজপথে রক্ত ঝরিয়েছে তাদের মূল্যায়ন না করে নতুন মুখ অযোগ্যদের মূল্যায়ন করা হয়েছে। যাদের পদবঞ্চিত করা হয়েছে তারা প্রত্যেকেই মামলা-হামলার আসামী।’

ছাত্রদল নেতা জুয়েল বেপারী বলেন, ‘আমি ৬ বছর ধরে ছাত্রদলের রাজণীতির সাথে যুক্ত। রাজপথের প্রতিটি মিছিল সংগ্রামে ছিলাম। কিন্তু কাউকে কিছু না জানিয়ে হঠাৎ করে কেন্দ্রীয় ছাত্রদলের পক্ষ থেকে কমিটি ঘোষণা করা হয়েছে। কমিটিতে রাখা কেউই ছাত্রদলের ডেডিকেটেট কর্মী নয়। কেন্দ্রীয় ছাত্রদলকে ভুল বুঝিয়ে টাকার বিনিময়ে কমিটি নিয়ে নয়-ছয় করা হয়েছে। দ্রুত কমিটিগুলো বাতিল না করলে বৃহত্তর আন্দোলন কর্মসূচি ঘোষণা করা হবে।’

এসময় ছাত্রদল নেতা আল আমিন, মুন্না, সোহাগ প্রধান, দেওয়ান ইসমাইল, রিয়াদ প্রধান, নুর আলম, মো. জমির, মো. শামীম, সাইফুল ইসলাম মৃধা, রনি’সহ ফরাজীকান্দি ইউনিয়নের প্রতিটি ওয়ার্ডের নেতাকর্মীরা উপস্থিত ছিলেন।

দৈনিক আলোর প্রতিদিন এর প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।

পাঠকের মতামত: