করোনা লাইভ
আজকে আক্রান্ত : ২,৬৩৫ ◈ আজকে মৃত্যু : ৩৫ ◈ মোট সুস্থ্য : ১৩,৩২৫
প্রচ্ছদ / সারাদেশ / বিস্তারিত

মো. দ্বীন ইসলাম

চাঁদপুর প্রতিনিধি

মতলব উত্তরে ১০টাকা দরে চাল বিক্রয় শুরু হওয়ায় স্বস্তিতে খেটে খাওয়া মানুষরা

৩০ মার্চ ২০২০, ১০:৩৯:০৯

“শেখ হাসিনার বাংলাদেশ ক্ষুধা হবে নিরুদ্দেশ” এ স্রোগানকে সামনে নিয়ে মতলব উত্তর উপজেলার ফরাজীকান্দি ইউনিয়নে খাদ্যবান্ধব কর্মসূচির অধীনে হত-দরিদ্রদের মাঝে ১০ টাকা কেজি দরে চাল বিতরণ কর্মসূচি উদ্বোধন করা হয়েছে।
সোমবার (৩০ মার্চ) সকালে সামাজিক দূরত্ব বজায় রেখে ফরাজীকান্দি ইউনিয়নের গৌরাঙ্গ বাজারে অসহায় দরিদ্র ৪’শত ৯৮জন কার্ডধারীর মাঝে এ চাল বিতরণ কার্যক্রমের উদ্বোধন করেন উপজেলা আমার বাড়ি আমার খামার প্রকল্প সমন্বয়কারী ও ট্যাগ অফিসার জাহাঙ্গীর আলম, ডিলার রমিজ উদ্দিন শিশির, ইউপি সদস্য নাছির হোসেন মুন্সি।
সুুফলভোগী পরিবাররা জানান, করোনা ভাইরাস প্রতিরোধে আমাদেরকে ঘর থেকে বের না হওয়ার নির্দেশ দিয়েছে সরকার। এতে করে আমরা খেটে খাওয়া মানুষরা কাজ করতে পারছিনা, বেকার হয়ে গেছি। এমতাবস্থায় সরকার আমাদেরকে ১০টাকা দরে দিচ্ছে। শেখ হাসিনার দেওয়া ১০টাকা কেজি দামে চাল পেয়ে আমরা খুবই খুশি ও আনন্দিত কারণ পরিবারের সকল সদস্যদের নিয়ে দুুবেলা দু’মুুঠো ভাত খেতে পারবো।
ডিলার রমিজ উদ্দিন শিশির জানান, সরকারের এই খাদ্যবান্ধব কর্মসূচি চালু হওয়ায় প্রান্তিক জনগোষ্ঠীর অতিদরিদ্র মানুষের মাঝে স্বস্তি ফিরে এসেছে। আমরা নিয়ম অনুসারে সুশৃঙ্খলবে শান্তি পূর্ন পরিবেশে অতি দরিদ্র কার্ডধারীর মাঝে এই চাল বিক্রয় করছি। এই কর্মসূচির সময় ও বরাদ্দ আরও বাড়ালে গ্রামের প্রত্যন্ত এলাকার খেটে-খাওয়া গরীব অসহায় মানুষরা আরও উপকৃত হতো।
আমার বাড়ি আমার খামার প্রকল্প সমন্বয়কারী ও ট্যাগ অফিসার জাহাঙ্গীর আলম বলেন, সরকারের বিভিন্ন ভিশন বাস্তবায়ন করাই আমাদের মূল কাজ। দরিদ্র ও অসহায় পরিবারের মাঝে ১০টাকা কেজি দরে চাল বিক্রি প্রধানমন্ত্রীর একটি বড় পদক্ষেপ। চাল বিতরণে সুষ্ঠু পরিবেশ নিশ্চিত করার লক্ষ্যে উপজেলা নির্বাহী অফিসার এএম জহিরুল হায়াতের নির্দেশে আমরা সকল ট্যাগ অফিসাররা উপস্থিত থেকে চাল বিতরণ করছি। এই চাল বিতরণে কোন প্রকারের অনিয়ম সহ্য করা হবে না। আশা রাখি শেষ পর্যন্ত ভালো ভাবেই এই চাল বিতরণ সম্পন্ন হবে।
প্রসঙ্গত, ৫, ৬, ৭, ৮,ও ৯নং ওয়ার্ড এই ৫টি ওয়ার্ডের ৪’শত ৯৮জন সুফলভোগী পরিবার রয়েছে।

দৈনিক আলোর প্রতিদিন এর প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।

পাঠকের মতামত: