প্রচ্ছদ / সারাদেশ / বিস্তারিত

মতলব উত্তর শিক্ষক সমাজের পক্ষ থেকে নবনির্বাচিত জনপ্রতিনিধিদের সংবর্ধনা

১৬ মে ২০১৯, ১১:১১:৪৬

ছবি-: মতলব উত্তর শিক্ষক সমাজের পক্ষ থেকে চাঁদপুর-২ আসনের সংসদ সদস্য এডভোকেট আলহাজ¦ নুরুল আমিন রুহুলকে সংবর্ধনা ঈস্খদান করা হয়।

মতলব উত্তর ব্যুরো :
মতলব উত্তর শিক্ষক সমাজের পক্ষ থেকে নবনির্বাচিত জনপ্রতিনিধিদের সংবর্ধনা অনুষ্ঠানে সংবর্ধিত প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন- চাঁদপুর-২ আসনের সংসদ সদস্য এডভোকেট আলহাজ¦ নুরুল আমিন রুহুল।

উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষক সমিতির সভাপতি মো. শহীদ উল্লাহ প্রধানের সভাপতিত্বে এবং সাধারণ সম্পাদক সরকার আবুল কালাম আজাদের স ালনায় নাউরী আহম্মদীয়া উচ্চ বিদ্যালয় মাঠে সংবর্ধনা অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথির বক্তব্য রাখেন- উপজেলা চেয়ারম্যান ও উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক বীর মুক্তিযোদ্ধা এমএ কুদ্দুস।

বক্তব্য রাখেন- মতলব দক্ষিণ উপজেলা চেয়ারম্যান এএইচএম গিয়াস উদ্দিন, উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান মোতাহার হোসেন খাঁন সুফল, মতলব উত্তর থানার ওসি (তদন্ত) মুরশেদুল আলম ভূঁইয়া, মতলব উত্তর উপজেলা আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক মো. শাহজাহান প্রধান, ফতেপুর পশ্চিম ইউনিয়নের চেয়ারম্যান নূর মোহাম্মদ, শাহবাগ থানা আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক আকতার হোসেন, চাঁদপুর গণি মডেল উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক ও জেলা মাধ্যমিক শিক্ষক সমিতির সভাপতি আব্বাস উদ্দিন, নাউরী আহম্মদীয়া উচ্চ বিদ্যালয়ের ব্যবস্থাপনা কমিটির সভাপতি সিরাজুল ইসলাম সরকার, প্রধান শিক্ষক একেএম তাজুল ইসলাম, সুজাতপুর নেছারিয়া উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক শাহজালাল মাস্টার, মেঘনা ধনাগোদা সেচ প্রকল্প পানি ব্যবহারকারী ফেডারেশনের সাধারণ সম্পাদক সরকার মো. আলাউদ্দিন।
এ সময় উপস্থিত ছিলেন- মতলব উত্তর উপজেলা যুবলীগের সভাপতি দেওয়ান জহির, সাধারণ সম্পাদক কাজী শরীফ, কৃষক লীগের সাধারণ সম্পাদক জিএম ফারুক, উপজেলা শ্রমিক লীগের সাধারণ সম্পাদক মুজাহিদুল ইসলাম সেলিম, উপজেলা ছাত্রলীগের সাবেক যুগ্ম আহ্বায়ক মিরাজ খালিদ প্রমুখ।

মতলব উত্তর উপজেলার মাধ্যমিক ও উচ্চ মাধ্যমিক পর্যায়ের শিক্ষকদের আয়োজনে স্থানীয় সাংসদ সদস্য ও উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যানকে সংবর্ধনা ও ইফতার পার্টি আয়োজন করা হয়।

প্রধান অতিথি তার বক্তব্যে বলেন, শিক্ষকরা মানুষ গড়ার কারিগর। শিক্ষা মানুষের জন্মগত অধিকার। শিক্ষকরা প্রজন্মের পর প্রজন্ম তৈরি করছেন। তাদের সম্মান সবার ওপরে।

রুহুল বলেন, স্বাধীনতার পরপরই নারী শিক্ষার প্রতি গুরুত্ব দিয়েছিলেন জাতির পিতা। প্রাথমিক শিক্ষা বাধ্যতামূলক করেছিলেন তিনি। এর ধারাবাহিকতায় শিক্ষার উন্নয়নে কাজ করে যাচ্ছে। শিক্ষা ছাড়া কোনো জাতি উন্নতি করতে পারে না। মেধা বিকাশের সুযোগ করে দিতে পারলে আমাদের ছেলে-মেয়েরা শুধু দেশেই নয়, বিদেশেও অবদান রাখতে সক্ষম হবে।

নুরুল আমিন রুহুল শিক্ষকদের উদ্দেশ্য বলেন, প্রজন্মকে এমনভাবে তৈরি করবেন যেনো তারা দেশপ্রেমে উদ্বুদ্ধ হয়। জনগণের জন্য নিজেদের বিলিয়ে দেয়ার মানসিকতা যেনো তারা অর্জন করতে সক্ষম হয়।

দৈনিক আলোর প্রতিদিন এর প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।

পাঠকের মতামত: