প্রচ্ছদ / সারাদেশ / বিস্তারিত

রাজাপুর উপজেলা বিএনপির সভাপতিসহ গ্রেফতার-২

মাদ্রাসা অধ্যক্ষকে মারধর

২২ জানুয়ারি ২০২০, ৯:৪৫:৫৪

রাজাপুর প্রতিনিধি: ঝালকাঠির রাজাপুর উপজেলার কেওতা ঘিগড়া ফাজিল (ডিগ্রী) মাদ্রাসার অধ্যক্ষকে মারধরের ঘটনায় উপজেলা বিএনপির সভাপতি তালুকদার আবুল কালাম আজাদসহ ২জনকে গ্রেফতার করেছে থানা পুলিশ। এ সময় তার সাথে ঐ মাদ্রাসার প্রভাষক শাহিনকেও আটক করা হয়।

স্থানীয়রা জানায়, মাদ্রসার একটি নিয়োগ পরীক্ষা ও ম্যানেটিং কমিটি নিয়ে বিরোধের জের ধরে বুধবার দুপুওে মাদ্রাসার অধ্যক্ষ মাওলানা অলিউল্লাহকে মারধর করেন আবুল কালাম আজাদ সহ তার নেতৃত্বে মাদ্রাসার শিক্ষক শাহিন এবং ছাত্রদল ও যুবদলের নেতাকমীরা। খবর শুনে পুলিশ ঘটনাস্থলে এসে মাদ্রাসা অধ্যক্ষকে উদ্ধার করে এবং আবুল কালাম আজাদ ও তার সমর্থক ঐ মাদ্রাসার রাষ্ট্রবিজ্ঞানের প্রভাষক শাহিনকে গ্রেফতার করে।

এ বিষয় কেওতা ঘিগড়া ফাজিল মাদ্রাসার অধ্যক্ষ মাওলানা অলিউল্লাহ বলেন, একটি নিয়োগ পরীক্ষায় অফিস সহকারী কাম কমিপ্পউটার পদে প্রথম হওয়া মো. হাফিজুর রহমানকে নিয়ম অনুযায়ী নিয়োগ প্রদান করা হয়। পরীক্ষায় যুবদল নেতা চমনের স্ত্রী মরিয়ম খানম যৌথভাবে দ্বিতীয় স্থান অর্জন করে। চমন তার স্ত্রীকে নিয়োগ দিতে চাপ দিতে থাকে। নিয়োগ ঠেতাতে না পেরে ঝালকাঠির রাজাপুর সহকারী আদালতে একটি মামলা (নং ৯২/১৯) করে। আদালত সে মামলা খারিজ করে দেয়। আজকে সকালে আবুল কালাম ও তার ভাতিজা চমন লোকজন নিয়ে অকথ্য ভাষায় গালাগাল করে আমাকে মারধর করতে থাকে। আমাকে রক্ষা করতে এগিয়ে আসলে মাদ্রসার সহকারী শিক্ষক মোবাশ্বের হোসেন ও এবতোদায়ী প্রধান সাইদুর রহমান আহত।

রাজাপুর থানার ওসি তদন্ত আবুল কালাম জানান, মাদ্রাসা অধ্যক্ষকে মারধরের সত্যতা পাওয়া গেছে। অধ্যক্ষ বাদি হয়ে যুবদল নেতা নাজমুল হুদা চমন, উপজেলা বিএনপির সভাপতি তালুকদার আবুল কালাম, উপধ্যক্ষ সাইফুল ইসলাম ও প্রভাষক শাহিন হাওলাদারের নাম উল্লেখ করে ৪/৫জন অজ্ঞাতনামাদের বিরুদ্ধে মামলা করেছেন।

দৈনিক আলোর প্রতিদিন এর প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।

পাঠকের মতামত: