বিশেষ সাক্ষাৎকার

মানুষের প্রতি অামার যে কমিটমেন্ট সে জায়গাতে অামি সফল – সুলতানা রাজিয়া

১২ নভেম্বর ২০১৮, ১১:১০:১১

তেঁতুলিয়া উপজেলা পরিষদে দুই মেয়াদে প্রায় দশ বছর যাবৎ মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান হিসেবে দায়িত্ব পালন করছেন জনাব সুলতানা রাজিয়া। গতানুগতিক নারী নেতৃত্বের জায়গায় নিজস্ব ধরণ নিয়ে পেয়েছেন সাফল্য। দৈনিক অালোর প্রতিদিন পত্রিকার পক্ষে তার সাক্ষাতকার নিয়েছেন পত্রিকাটির জেলা প্রতিনিধি ডি. এম. অারাফাত হোসাইন।

অালোর প্রতিদিনঃ মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান হিসেবে টানা দুই মেয়াদে দায়িত্ব পালন করছেন। নিজের কাজকে কিভাবে মূল্যায়ন করবেন?

সুলতানা রাজিয়াঃ অামি মনে করি মানুষের প্রতি অামার যে কমিটমেন্ট সে জায়গাতে অামি সফল। মানুষের প্রয়োজনে সব সময় অাশানুরূপ সাড়া দিয়ে এসেছি। ভবিষ্যতেও সাড়া দিয়ে যাবো।

অালোর প্রতিদিনঃ অাপনি উপজেলা নারী উন্নয়ন ফোরামের পাশাপাশি জেলা নারী উন্নয়ন ফোরামের নির্বাচিত সভাপতি। নারী উন্নয়নে জেলা নারী উন্নয়ন ফোরামের ভূমিকা অাসলে কতটুকু?

সুলতানা রাজিয়াঃ জেলা নারী উন্নয়ন ফোরাম মূলত জেলার প্রতিটি উপজেলার নারী উন্নয়ন ফোরামের সাথে সমন্বয় করে কাজ করে। প্রতি উপজেলার ইউএনও, মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান এবং অন্যান্য জনপ্রতিনিধিদের সাথে সভা করে সমস্যা চিহ্নিত করে তা সমাধানে উদ্যোগ নেওয়া হয়।

অালোর প্রতিদিনঃ এখনো অনেক ক্ষেত্রে সংসারে নারী নির্যাতনের ঘটনা ঘটছে। এটা বন্ধ করতে কোন জায়গায় ঘাটতি রয়েছে বলে অাপনার মনে হয়?

সুলতানা রাজিয়াঃ মূলত যৌতুকের কারণে নারী নির্যাতনের ঘটনা ঘটে থাকে। এক্ষেত্রে মানুষের যৌতুকলোভী মনমানসিকতার পরিবর্তন দরকার।

অালোর প্রতিদিনঃ উপজেলায় বাল্যবিবাহের হার এখনো বেশি। এটাকে অাপনার ব্যর্থতা বলে মনে করেন কিনা?

সুলতানা রাজিয়াঃ অাসলে এটি একটি সম্মিলিত ব্যর্থতা। বাল্য বিবাহ হচ্ছে খবর পেলে প্রশাসনের সহযোগীতায় তাৎক্ষণিকভাবে সেটি বন্ধ করে দেওয়া হয়। এরপরও বাল্যবিবাহের জন্য তথ্য না থাকা, নোটারী পাবলিকের কিছু অসাধু ব্যক্তি এবং কিছু জনপ্রতিনিধিও দায়ী। সম্প্রতি বুড়াবুড়ি ইউপির এক সদস্যকে বাল্যবিবাহে সহযোগীতার দায়ে বহিষ্কার করা হয়েছে। কিছু ক্ষেত্রে কন্যা সন্তান নিয়ে বাবা মায়ের দুশ্চিন্তাও বাল্যবিবাহের অন্যতম কারণ।

অালোর প্রতিদিনঃ ইভটিজিং, বাল্যবিবাহ, যৌতুক ও নারী নির্যাতন বন্ধে অাপনার উল্লেখযোগ্য কাজগুলো কি কি?

সুলতানা রাজিয়াঃ এসব বন্ধে কখনো সরাসরি, কখনো সহযোগীর ভূমিকা পালন করি। উল্লেখ করার মত বলতে অাজিজনগরে স্ত্রীকে নির্যাতনের দায়ে এক বিজিবি সদস্যের চাকরি চলে গেছে, ভজনপুরে অষ্টম শ্রেণীর এক ছাত্রীকে ইভটিজিং করায় এক বখাটেকে দুই মাসের জেল দেওয়া হয়েছে। তিরনই হাটে বাল্যবিবাহের দায়ে বরকে মোবাইল কোর্টের মাধ্যমে জেল দেওয়া হয়। এছাড়া প্রতিনিয়ত এসব নিয়েই কাজ করতে হয়।

অালোর প্রতিদিনঃ তেঁতুলিয়ায় একটি অালোচিত ঘটনা ছিলো এক কিশোরীর অাত্মহত্যার পরিপ্রেক্ষিতে গড়ে উঠা একটি অান্দোলন। সেটির বর্তমান অবস্থা কি?

সুলতানা রাজিয়াঃ দরিদ্র পরিবারের এক কিশোরী দিনের পর দিন ধর্ষণের পরে অাত্মহত্যায় বাধ্য হবার পর পরিবার থেকে থানায় মামলা করতে গেলে তা না নেওয়ার পরিপ্রেক্ষিতে তেঁতুলিয়ায় দলমত নির্বিশেষে একটি অান্দোলন গড়ে উঠে। পরে পুলিশ মামলা নিতে বাধ্য হয়। বর্তমানে মেয়েটির পরিবার মানবেতর জীবনযাপন করছে।

অালোর প্রতিদিনঃ এই অান্দোলনের কারণে কোন পক্ষ থেকে হুমকি ধমকি পেয়েছেন কি?

সুলতানা রাজিয়াঃ এসব তো প্রতিনিয়ত পাই। অামাকে দেখে নেওয়ার হুমকি দেওয়া হয়। তবে মানুষ সবই বোঝে। তাই এসব পরোয়া করিনা।

অালোর প্রতিদিনঃ কাজ করতে গিয়ে তেঁতুলিয়ার অন্যান্য রাজনৈতিক দলের নেতাকর্মীদের কাছে কেমন সহযোগীতা পান?

সুলতানা রাজিয়াঃ সবাই অনেক সহযোগীতা করে। এখানকার রাজনৈতিক পরিবেশ সব সময় শান্তিপূর্ণ। তেঁতুলিয়ার মানুষ শান্তিপ্রিয়।

অালোর প্রতিদিনঃ কোন কাজে কখনো বাঁধার সম্মুখীন হয়েছেন কি?

সুলতানা রাজিয়াঃ কাজ করতে গেলে দু একজনের স্বার্থে অাঘাত লাগবে এটাই স্বাভাবিক। তবে যেটা অন্যায় সেটার সাথে অাপোষ করিনি।

অালোর প্রতিদিনঃ দলমত নির্বিশেষে সব পর্যায়ের মানুষের কাছে অাপনার জনপ্রিয়তা রয়েছে। এই জনপ্রিয়তার উৎস কি?

সুলতানা রাজিয়াঃ এটা অাসলে অামার প্রতি মানুষের ভালবাসা অার মানুষের প্রতি অামার ভালবাসার প্রতিদান। অামি সবসময় চেষ্টা করি যেকোন সমস্যায় সাথে সাথে ছুটে যাবার। মানুষ ডাকলে সবসময় অামাকে তাদের কাছে পায়।

অালোর প্রতিদিনঃ গত নয় বছরে অাপনার ব্যর্থতাগুলো কি কি বলে অাপনি মনে করেন?

সুলতানা রাজিয়াঃ উল্লেখ করার মত ব্যর্থতা অামি দেখিনা। তবে রাজনৈতিক ভিন্নমত না থাকলে মানুষের কল্যাণে অারও বেশি কিছু করতে পারতাম।

অালোর প্রতিদিনঃ এলাকায় গুঞ্জন রয়েছে সামনে উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে অাপনি চেয়ারম্যান পদে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করবেন। এটি গুজব নাকি সত্যি?

সুলতানা রাজিয়াঃ এটি অাসলে মানুষের ইচ্ছার উপর নির্ভর করছে। মানুষ চাইলে এবং দল বিবেচনা করলে অামার অাপত্তি নেই।

অালোর প্রতিদিনঃ সহকর্মী হিসেবে উপজেলা চেয়ারম্যান রেজাউল করিম শাহিনকে মূল্যায়ন করুন।

সুলতানা রাজিয়াঃ শাহিন ভাই এককথায় চমৎকার একজন মানুষ। যেকোন কাজে তার কাছে সবসময় সহযোগীতা পাই।

অালোর প্রতিদিনঃ অাগামী উপজেলা পরিষদ নির্বাচন নিয়ে অাপনার পরিকল্পনা কি?

সুলতানা রাজিয়াঃ এটিও মানুষের ইচ্ছার উপর নির্ভর করছে। অামার চেষ্টা থাকবে সব সময় মানুষের পাশে থেকে উপকার করার। তা যে অবস্থাতেই থাকিনা কেনো।

অালোর প্রতিদিনঃ ভবিষ্যতে কেমন তেঁতুলিয়া দেখতে চান?

সুলতানা রাজিয়াঃ অামি চাই ভবিষ্যতের তেঁতুলিয়া হবে বাল্যবিবাহ, নারী নির্যাতন এবং মাদকমুক্ত অাধুনিক তেঁতুলিয়া। যেখানে সব মানুষ সুখে শান্তিতে বসবাস করতে পারবে।

অালোর প্রতিদিনঃ অাপনাকে ধন্যবাদ।

সুলতানা রাজিয়াঃ ধন্যবাদ।

দৈনিক আলোর প্রতিদিন এর প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।

পাঠকের মতামত: