fbpx
প্রচ্ছদ / সারাবিশ্ব / বিস্তারিত

মায়ের পেটে থেকেই আঙ্গুলে ‘ভি’ চিহ্ন দেখাচ্ছে শিশু! আলট্রাসনোয় তোলপাড়

৪ নভেম্বর ২০১৯, ১০:৫৪:৪৩

জেমা হাউস্টন (২১) নামে স্কটল্যান্ডের সন্তান-সম্ভবা নারী হাসপাতালে গিয়েছিলেন তার গর্ভের সন্তানের অবস্থা কী তা জানার জন্য। কিন্তু তার গর্ভের আল্ট্রাসাউন্ড স্ক্যান করার সময় তার ও হাসপাতালের কর্মীদের আক্কেল গুড়ুম হওয়ার মতো অবস্থা হলো। ফোরডি ভিডিও স্ক্যান করার সময় বাচ্চাটি ‘ভি’ বা বিজয় চিহ্ন দেখিয়ে দিয়েছে তাদেরকে!

সন্তান সম্ভবা জেমা হাউস্টন তখন মস্করা করে বলেন, মেয়েটি দেখা যাচ্ছে তার মায়ের মতোই একজন ‘দিভা’ হবে।

ওই হাসপাতালের এক প্রশাসনিক কর্মী দৈনিক দ্য স্কটিশ সানকে বলেন, ‘বিষয়টি দেখে আমি বেশ আমোদিত এবং বিস্মিত হয়েছি।’

হাসপাতালের যে নারী কর্মী ওই আল্ট্রাসাউন্ড স্ক্যান করেছেন তিনি জানান, জেমার গর্ভের বাচ্চাটি প্রথম থেকেই আমাদের নানাভাবে ভড়কে দিচ্ছিলো। যতবার আমি তার গর্ভের স্ক্যান করেছি ততবারই আমি ভড়কে গেছি। কেননা একবারও বাচ্চাটিকে গর্ভের ভেতর সঠিক অবস্থানে দেখতে পাইনি আমি। এবং কোনবারই বাচ্চাটি আমাদের কাজে সহযোগিতা করেনি। যা আমাকে বেশ ভড়কে দিতো।

জেমার গর্ভের এই কন্যা সন্তানটির বাবা তারই বিশ্ববিদ্যালয় পড়ুয়া ছেলেবন্ধু ক্রিস মিলার (২৪)।

জেমা জানান, তার গর্ভের সন্তানের বাবাও ঠাট্টা করে বলেছে, তাদের মেয়েটিও তার মায়ের মতোই উচ্চ মানের ‘দিভা’ হবে যাকে বাগে আনা খুব কঠিন হবে। সকলেই যেমনটা বলছে।

জেমা বলেন, ‘আমিও বলবো না আমি দেখতে খুব খারাপ। তবে লোকে যেহেতু আমাকে ‘দিভা’ বলে ডাকে আমি হয়তো তাই।’

‘সকলেই বিষয়টি নিয়ে মজা পাচ্ছে। আমার পরিবারও মনে করে বিষয়টি বেশ কৌতুককর। তবে আমার মেয়ে যখন বড় হবে তখন তাকে তার এই গর্ভে থাকার সময়কার কাণ্ড-কারখানা দেখালে হয়তো বেশ মজা হবে।’

‘এর আগের একটি স্ক্যানেও তাকে সঠিক অবস্থানে দেখা যায়নি। এবার অন্তত তার চেহারাটা দেখতে পেরেছি।’

আগামী সপ্তাহে শেষবারের মতো জেমা তার গর্ভের স্ক্যান করাবেন যাতে একটি ভালো মানের ছবি পাওয়া যায়।
মা হওয়ার জন্য আর তার তর সইছে না বলেও জানান জেমা। শিগগিরই তিনি গর্ভের সন্তানকে দুনিয়ার আলো দেখাতে চান। যত তাড়াতাড়ি তা সম্ভব মেয়ের সাক্ষাত চান তিনি। তবে সেজন্য অপেক্ষা করতে হবে আরো দু মাসের বেশি সময়। আগামী বছরের শুরুতেই জেমা কন্যা সন্তানের মা হবেন।

জেমা হাউস্টন তার গর্ভের মেয়ের ‘ভি’ চিহ্ন দেখানোর একটি ছবি নিজের ফেসবুক পেজেও পোস্ট করেছেন।
https://www.facebook.com/profile.php?id=100009131885596&sk=photos

সূত্র: দ্য সান

দৈনিক আলোর প্রতিদিন এর প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।

পাঠকের মতামত: