fbpx
প্রচ্ছদ / সারাদেশ / বিস্তারিত

মেহেদী হাসান শামীমের নিঃশর্তে মুক্তি তার সাথে দেলু ডাকাতের উপযুক্ত বিচার চাই -বাকেরগঞ্জ বাসি

১৫ জুলাই ২০১৯, ৯:৩৬:৫০

বাকেরগঞ্জ প্রতিনিধিঃ

বরিশাল জেলার বাকেরগঞ্জ উপজেলার দেলোয়ার হোসেন (দেলু)৪৯ নামের একজন লোক রয়েছেন । তিনি রয়েছে নানাবিদ অপরাধ মূলক কর্মকান্ডের সাথে জরিত বলে অভি্যোগ করেন সরকারী বাকেরগঞ্জ কলেজ ছাত্রলীগের সাবেক সভাপতি ও বাকেরগঞ্জ যুবলীগ নেতা মেহেদি হাসান শামীম । এলাকা বাসির কাছে জানতে চাইলে তারা বলেন,

বরিশাল জেলার বাকেরগঞ্জ উপজেলার বংশ পরম্পরায় কুখ্যাত ডাকাত এবং সন্ত্রাসী কর্মকান্ডে জড়িত দেলোয়ার হোসেন ওরফে দেলু ডাকাত (বোমা বিশেষজ্ঞ) এর অন্যায়ের বিরুদ্ধে প্রতিবাদ করায় ষড়যন্ত্রের শিকার হয়ে সরকারী বাকেরগঞ্জ কলেজ ছাত্রলীগের সাবেক সভাপতি এবং বাকেরগঞ্জ যুবলীগ নেতা ও জন সাধারনের সর্ব সময়ের বন্ধু মেহেদি হাসান শামীম এখন কারাবন্দী।শোনা গেছে দেলু ডাকাতের দাদা মৃত লেহাজউদ্দিন এবং বাবা মৃত মকবুল আলী কুখ্যাত ডাকাত ছিলেন তার বড় ভাই হাবেদ আলী ছিলেন কুখ্যাত হাবেদ বাহিনীর প্রধান।দেলু ডাকাত নিজেকে একজন বিএনপির নেতা দাবী করেন।১৯৯২ সালে বিহারীপুর এর ভোর্তা বাজারে তার বাহিনী নিয়ে লুট করে এবং ১৯৯৪ সালে মজিদ কাজী,রুস্তম হাওলাদার ও তৈয়ব আলী চৌকিদার নামের তিন ব্যক্তির হাত কাটেন।তাছাড়া ২৭/০১/১৯৯৯ সালে নারায়ণগঞ্জ ফতুল্লা থানায় ডাকাতি মামলা হয় মামলার ধারা ৩৯৫/৩৯৭ ।

এরপর ৩১/০৩/১৯৯৯ সালে নারায়ণগঞ্জ জেলার রূপগঞ্জ থানায় ডাকাতি মামলা হয় মামলার ধারা ৩৯৫/৩৯৭।বরিশাল জেলার বাবুগঞ্জ থানায় ২০০৩ সালের আলোরন সৃষ্টিকারী ত্রিপল মার্ডারের অধিনায়ক ও আসামি এই দেলু ডাকাত।

এলাকার জনগনের দাবি,আমরা জনসাধারণ কর্তৃপক্ষের কাছে আবেদন করছি যেন উক্ত বিষয়টি যথাযথ সুষ্ঠু তদন্ত করে আমাদের সাধারণ মানুষের অতি নিকটতম মানুষ মেহেদী হাসান শামীমের নিঃশর্তে মুক্তি দেওয়া হোক এবং মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর কাছে দাবি জানাই এমন কুখ্যাত ডাকাত,বোমাবাজ ও সন্ত্রাসীদের যথাযথ শাস্তি দেওয়া হোক যাতে পরবর্তীতে এমন জগন্য ডাকাত জন্ম না নেয় এবং অন্যায়ের প্রতিবাদে ষড়যন্ত্রের শিকার না হয়ে কারাবন্দী হতে না হয় ।

দৈনিক আলোর প্রতিদিন এর প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।

পাঠকের মতামত: