শিরোনাম
     করোনা লাইভ
আজকে আক্রান্ত : ০ ◈ আজকে মৃত্যু : ০ ◈ মোট সুস্থ্য : ১,০০৯,৯৭৫
প্রচ্ছদ / সারাদেশ / বিস্তারিত

রাঙ্গাবালীতে আওয়ামী লীগের পূর্ণাঙ্গ কমিটিতে স্বজনপ্রীতি, জামাত-বিএনপি অন্তর্ভুক্ত অভিযোগ মিথ্যা

১৪ জুলাই ২০২১, ১২:২৯:১৯

*জেলা কমিটির দাবি এসব অভিযোগ মিথ্যা বানোয়াট

প্রতিনিধি, রাঙ্গাবালী (পটুয়াখালী)
সম্মেলনের দেড় বছর পরে গত ৩০ জুন পটুয়াখালীর রাঙ্গাবালীতে উপজেলা আ.লীগের ৭১ সদস্যের পূর্ণাঙ্গ কমিটির অনুমোদন দেয় জেলা আওয়ামী লীগ। ২০১৯ সালের ২৯ নভেম্বর উপজেলা সম্মেলনে দেলোয়ার হোসেনকে সভাপতি ও সাইদুজ্জামান মামুনকে সাধারন সম্পাদক করে নাম ঘোষনা করে জেলা কমিটি। সদ্য প্রকাশিত পূর্ণাঙ্গ কমিটিতে ৩৬ জনকে পদধারী এবং ৩৫ জনকে সদস্য করা হয়। ওই কমিটিতে সাংগঠনিক সম্পাদক নির্বাচিত হন ফরহাদ হোসেন। এতেই বাধে বিপত্তি। কমিটি প্রকাশের পরপর-ই ঘোষিত কমিটিতে সাংগঠনিক সম্পাদক পদে ফরহাদের আগামন দেখে স্বজনপ্রীতি ও জামায়াত,বিএনপির নেতাকে কমিটিতে পদধারী করা হয়েছে বলে জেলা নেতৃবৃন্দের কাছে লিখিত অভিযোগ দেয় পদবি ত দলীয় নেতাকর্মীরা। তবে এ অভিযোগ সম্পূর্ণ মিথ্যা বলে দাবি করেন জেলা,উপজেলা কমিটির নেতারা।

উপজেলা আ.লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক ফরহাদ হোসেন জানান, তিনি করোনা আক্রান্ত হয়ে ১৫ দিন আইসিউতে ছিলেন। এখনও তিনি সুস্থ নন। সাংবাদিকের এক প্রশ্নে জবাবে তিনি বলেন, তৎকালীন জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ে ২০০২-২০০৩ সালে ভর্তি হয়ে অ্যাডভোকেট শামীম আল সাইফুল সোহাগ ভাইয়ের সাথে ছাত্র রাজনীতি পথচলা শুরু হয়। তখন সে জগন্নাথ কলেজ বিশ্ববিদ্যালয় শাখার ছাত্রলীগের সাংগঠনিক সম্পাদক ছিলেন। এরপর সে কেন্দ্রীয় ছাত্রলীগের সহ-সভাপতি ছিলেন। এখন তিনি যুবলীগের কেন্দ্রীয় কমিটির সাংগঠনিক সম্পাদক। একটা রাজনৈতিক সংগঠনে অগনিত কর্মী থাকে সবাই পোস্ট পজিশন পায়না। আমিও পদ পজিশন পাইনি কিন্তু রাঙ্গাবালী উপজেলা যুবলীগে আমি সাংস্কৃতিক সম্পাদক পদ পেয়েছি ২০১৪ সালের জুন মাসে এবং এরপরে বড়বাইশদিয়া এ হাকিম মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের ম্যানেজিং কমিটির সভাপতি পদে নির্বাচিত হয়েছি। এরপরই আমার বিরুদ্ধে ষড়যন্ত্রের বেড়াজাল বুনতে থাকে। সদ্য প্রকাশিত উপজেলা আ.লীগের কমিটিতে যতাযোগ্যতার মূল্যায়ন করে আমাকে সাংগঠনিক সম্পাদক করা হয়। কিন্তু পদবি ত আমার রাজনৈতিক সহকর্মীরা তাদের হিংসাত্বক রুপ নিয়ে আমার বিরুদ্ধে মিথ্যা প্রপাগা-া ছড়াচ্ছে। যদিও তারা দেশ বিরোধী নিষিদ্ধ দলের কোনও পদ পজিশন দেখাতে পারেনি। আমার জীবনে কখনোই কোন দিনই জামায়াত বিএনপি রাজনীতি করিনাই। আমার রাজনৈতিক অবস্থান ও সামাজিক অবস্থান দেখে কিছুলোক প্রতিহিংসা পরায়ন হয়ে আমার নামে মিথ্যা বানোয়াট ভিত্তিহীন বিভ্রান্তিকর তথ্য রচনা করছে আমি এমন অপপ্রচার কারিদের ষড়যন্ত্রের তীব্র নিন্দা জানাই।

উপজেলা আ.লীগের সভাপতি অধ্যক্ষ দেলোয়ার হোসেন বলেন, ফরহাদ হোসেনের নামে যে অভিযোগ আসছে তা ভিত্তিহীন কারন সে ছাত্রজীবনে ছাত্রলীগ করেছে। বর্তমানে উপজেলা যুবলীগের সাংস্কৃতিক সম্পাদক পদে রয়েছে। যারা এসব কথা বলছে তারা পদ না পেয়ে মিথ্যা কথা বলছে।
পটুয়াখালী জেলা আ.লীগের সাধারণ সম্পাদক ভিপি আব্দুল মান্নান জানান, ফরহাদ হোসেনকে নিয়ে অভিযোগ আসছে, এটি মিথ্যা অভিযোগ। সে জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ে ছাত্রলীগ করেছে, রাঙ্গাবালী উপজেলা যুবলীগের সাংস্কৃতিক সম্পাদক ছিলো।
সকল কাগজ প্রমানসহ আমরা তাকে মূল্যায়ন করেছি। সে ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান নির্বাচন করবে বলে কিছু লোক তার নামে মিথ্যা গুজব রটায় আর কিছু না।

কেন্দ্রীয় যুবলীগের সাংগঠনিক সম্পাদক এ্যাডঃ শামিম আল সাইফুল সোহাগ মুঠোফোনে জানান, জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ে আমি তখন ছাত্রলীগের সাংগঠনিক ছিলাম। ২০০৩-২০০৪ সালের দিকে হবে। ফরহাদ তখন ১ম বর্ষের ছাত্র হবে। তখন আমাদের ছাত্রলীগের বিভিন্ন প্রোগ্রামে উপস্থিত থাকতো। কেন্দ্রীয় যুবলীগের পদ পাওয়ার পরে যখন রাঙ্গাবালীতে গিয়েছি তখন সংবর্ধনা অনুষ্ঠানে ফরহাদ ছিলো। তখনতো কেউ আমাকে বলেনি যে ফরহাদ জামাত তাহলে আমি তখনি তাকে বের করে দিতাম। ফরহাদ আমার সাথে ছাত্রলীগ করেছে। যারা এসব কথা বলে তারা আসলে রাজনৈতিক প্রতিহিংসার কারনে বলে হয়তো।

দৈনিক আলোর প্রতিদিন এর প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।

পাঠকের মতামত: