শিরোনাম
     করোনা লাইভ
আজকে আক্রান্ত : ১,২৩০ ◈ আজকে মৃত্যু : ৩৩ ◈ মোট সুস্থ্য : ৭১৫,৩২১

উত্তম চক্রবর্তী

মনিরামপুর(যশোর)

রাজগঞ্জে কাঁচামাল, ডিমসহ নিত্যপ্রয়োজনীয় জিনিসপত্রের দাম ব্যাপক বৃদ্ধি

৬ জুলাই ২০১৮, ৮:৩৮:০১

উত্তম চক্রবর্তী,মনিরামপুর(যশোর)অফিস :- যশোরের মনিরামপুর উপজেলার রাজগঞ্জ বাজারে বেড়েছে নিত্যপ্রয়োজনীয় জিনিসপত্রের দাম৷ বাড়তি দামের জিনিসপত্র কিনতে হিমশিম খাচ্ছে এ অঞ্চলের অল্প আয়ের খেটে খাওয়া মানুষ৷ তারা সারাদিন কাজ করে যে পরিমান টাকা আয় করছে, তা দিয়ে সংসারের চাহিদা অনুযায়ী নিত্যপ্রয়োজনীয় জিনিসপত্র কিনতে পারছে না৷ এদিকে বাজারের খুচরা ব্যবসায়ীরা বলছে, বিভিন্ন কারণে প্রয়োজনীয় জিনিসপত্রের দাম বাড়ছে৷ যেমন- চলমান বৃষ্টি, সরবরাহ কম ইত্যাদি৷ এসব কথা মানতে নারাজ বাজারের সাধারণ ক্রেতারা৷ তারা বলছে, ব্যবসায়ীরা সিন্ডিকেট করে বাজারে জিনিসপত্রের দাম বাড়াচ্ছে৷ যার ভোগান্তি পোহাচ্ছি আমরা (অল্প আয়ের মানুষ)৷

বাজার ঘুরে জানা গেছে, রাজগঞ্জ বাজারে আটা, ময়দা, চিনি, ডাল, তেল, লবন, কাঁচা তরিতরকারি থেকে শুরু করে বেড়েছে মাছের দাম৷ তবে উল্লেখযোগ্য হারে বেড়েছে কাঁচাঝাল ও ডিমের দাম৷ মাত্র তিনদিন আগেও যে কাঁচাঝাল ছিলো মাত্র ৪০ টাকা প্রতিকেজি, সেই ঝাঁল এখন বিক্রি হচ্ছে ২শ’ টাকা প্রতিকেজি৷ প্রথম ধাপেই ১৬০ টাকা প্রতিকেজিতে বেড়েছে কাঁচাঝালের দাম৷ তারপরেও গত সোমবার ও বৃহস্পতিবার রাজগঞ্জ বাজারের হাট বারে কাঁচাঝাল প্রায় ছিলো না বললেও চলে৷ খুচরা ব্যবসায়ীরা বলছে, আমরা পাইকারদের কাছ থেকে যে ভাবে কিনছি, সেই ভাবেই বিক্রি করছি৷ কাঁচাঝালের দাম আগামীতে আরো বাড়তে পারে কিনা জানতে চাইলে রহমত নামের এক খুচরা ব্যবসায়ী বলেন, বৃষ্টি বেশি হলে ঝালের দাম আরো বাড়বে


এদিকে, বেড়েছে পোল্ট্রি ডিমের দাম৷ যে ডিম এক সপ্তাহ আগে ছিলো প্রতি পিচ ৬ টাকা, এখন সেই ডিম প্রতি পিচ সাড়ে ৮ টাকায় বিক্রি হচ্ছে৷ রাজগঞ্জ বাজারের সুব্রত দত্ত নামের এক মুদি ব্যবসায়ী বলেন, ডিম সরবরাহকারি যশোরের আফিল গ্রুফ, চাহিদা অনুযায়ী ডিম সরবরাহ করছে না৷ কম কম সরবরাহ করে দামও নিচ্ছে বেশি৷ যে কারণে আমাদের দোকানেও দাম বেশি৷ বাজারে চলছে মাছের সংকট৷ ফলে বেশি দামে বিক্রি হচ্ছে৷ কিছু কিছু কাঁচা তরিতরকারির দাম প্রতিকেজিতে ৪/৫ টাকা হারে বেড়েছে৷ কিন্তু অপরিবর্তিত রয়েছে পেঁয়াজ ও রসুনের দাম৷ বাজারের এই বাড়তি দাম চাকরীজিবী, অর্থশালী ব্যক্তিদের কিছু মনে না হলেও রীতিমত চরম বিপাদে আছে রাজগঞ্জ অঞ্চলের হতদরিদ্র, খেটে খাওয়া অভাবি মানুষেরা৷

দৈনিক আলোর প্রতিদিন এর প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।

পাঠকের মতামত: