fbpx
প্রচ্ছদ / সারাদেশ / বিস্তারিত

রাজগঞ্জ বাজারে পেঁয়াজ, রসুন ও আলুর দাম আরো বৃদ্ধি, বাজার মনিটরিং করার দাবী ক্রেতাদের

২৯ অক্টোবর ২০১৯, ১২:৫৫:৩৮

উত্তম চক্রবর্তী,মণিরামপুর(যশোর)অফিস॥ যশোরের মণিরামপুর উপজেলার রাজগঞ্জ বাজারে পেঁয়াজ, রসুন ও আলুর দাম বেড়েছে আরো। যেনো সাধারণ ক্রেতাদের ক্রয় ক্ষমতার বাইরে চলে গেছে।
সোমবার বিকালে রাজগঞ্জ বাজারে সদয় করার সময় রাজগঞ্জ মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের সহকারি শিক্ষক মো. হাবিবুর রহমান জানান, ২০ টাকার পেঁয়াজ বিক্রি হচ্ছে ১শ’ ২০ টাকা, ৩০ টাকার রসুন বিক্রি হচ্ছে ১শ’ ৬০ টাকা কেজিপ্রতি। সেই সাথে প্রতিকেজি আলুতে ৪ টাকা বেড়ে ২৪ টাকা দরে বিক্রি হচ্ছে প্রতিকেজি। শুধু শিক্ষক হাবিবুর রহমান না এ বাজারে সদয় করতে আসা আরো অনেক ক্রেতা অভিযোগ করে বলেন, রাজগঞ্জ বাজারে দফায় দফায় পেঁয়াজসহ বিভিন্ন নিত্যপ্রয়োজনীয় জিনিসপত্রের দাম বৃদ্ধি পাচ্ছে। কিন্তু দেখার কেউ নেই।

কথা হয় এ বাজারে সদয় করতে আসা মোসলেম উদ্দিন, আব্দুস সামাদ, রফিক উদ্দিনসহ কয়েকজন অল্প আয়ের খেটে খাওয়া মানুষের সাথে, তারা জানান, কয় আগেও এই বাজার থেকে ২০ টাকা দিয়ে এক কেজি পেঁয়াজ কিনেছি। এখন সেই দামে দেড় শ’ গ্রাম পেঁয়াজ কিনতে হচ্ছে। ইচ্ছা থাকলেও চাহিদা অনুযায়ী কিনতে পারছি না। তারা আরো বলেন, দাম বেশি তাই, বাধ্য হয়েই পরিমানে কম কিনতে হচ্ছে।
রাজগঞ্জ বাজারের খুচরা বিক্রেতা সাইফুল ইসলাম, রবিউল ইসলামসহ কয়েকজন ক্রেতা বলেন, পাইকারী বাজার থেকে আমরা যখন, যেমন দামে পেঁয়াজ, রসুন ও আলু কিনছি, তখন সেই রকম দামেই বিক্রি করছি। তারা আরো বলেন, দাম বৃদ্ধি পাচ্ছে শুধু শুকনো মালের। কাঁচা মালের দাম (তরকারি) বৃদ্ধি পাচ্ছে না। এদিকে সাধারণ ক্রেতাদের অভিযোগ, একেক দোকানে একেক দামে পণ্য সামগ্রী বিক্রি করা হচ্ছে। কোনো দোকানে পণ্যের দাম এক নেই। সাধারণ ক্রেতাদের দাবী, যদি উপজেলা প্রশাসন থেকে নিয়মিত বাজার মনিটরিং করে, তাহলে বাজার নিয়ন্ত্রন হতো। বাজার মনিটরিং না করার কারণেই ব্যবসায়ীরা ইচ্ছামত দামে বিক্রি করছে পণ্য সামগ্রী। বিষয়টির দিকে নজর দেওয়ার জন্য উপজেলা প্রশাসনের দৃষ্টি আকর্ষণ করছে রাজগঞ্জ এলাকার সাধারণ ক্রেতারা।

দৈনিক আলোর প্রতিদিন এর প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।

পাঠকের মতামত: