fbpx
প্রচ্ছদ / সারাদেশ / বিস্তারিত

রাজাপুরে বেওয়ারিশ কুকুরের উপদ্রবে আতংকে এলাকাবাসী

২৯ অক্টোবর ২০১৯, ৪:৩৩:৩৬

কামরুল হাসান মুরাদ:: কুকুর নিধনে উচ্চ আদালতের নিষেধাজ্ঞা থাকায় ঝালকাঠি জেলার রাজাপুর উপজেলায় সর্বত্র চলছে অস্বাভাবিকভাবে বেওয়ারিশ কুকুরের উপদ্রবে আতংক। এক কথায় বেওয়ারিশ কুকুরের দৌরাত্বে অতিষ্ঠ স্থানীয় এলাকাবাসী। পাড়া-মহল্লা, ওলি-গলিতে, খেলার মাঠ, সড়ক সহ সর্বত্র এসব কুকুরের আনাগোনা। সময়-অসময়ে কুকুরের ডাকাডাকিতে রীতিমতো বিরক্ত হয়ে উঠেছে রাজাপুরবাসী। ফলে বেওয়ারিশ কুকুর এলাকাবাসীর মাঝে এখন বড় আতংকের বিষয় হয়ে উঠেছে। কুকুরের জন্য ভয়ে আছে এলাকার সাধারন মানুষ। বেশ কয়েক সপ্তাহ ধরে উপজেলার বিভিন্ন এলাকা, বাজার ও রাস্তায় দলবদ্ধ ভাবে কুকুরের ব্যাপক আনাগোনায় জনমনে প্রশ্ন এতো কুকুর আসলো কোথা থেকে? এলাকার হাঁস, মুরগী, গবাদী পশু সহ শিশুদের নিয়ে বিপাকে পড়েছে এলাকাবাসী। শিশুরা বাইরে বের হতে ভয় পাচ্ছে, যে কারনে স্কুলগামী কোমলমতি শিশুদের নিয়ে অভিভাবকরা উদ্বিগ্ন। বিশেষ করে যারা নিয়মিত মর্নিং ওয়ার্ক করেন তারাও কুকুরের ভয়ে বিপাকে পড়েছেন।

এলাকাবাসী জানান, কিছু দিন ধরে উপজেলার বিভিন্ন বাজার সহ আবাসিক এলাকা গুলোতে ব্যাপক পরিমানে কুকুরের আনাগোনা লক্ষ্য করা যাচ্ছে। এক সাথে ১০-১৫টি কুকুর সংঘবদ্ধ ভাবে চলাফেরা করার ফলে সাধারন মানুষ পাশে যেতেও সাহস পাচ্ছে না। কমলমতি ছাত্র-ছাত্রীরা স্কুলে যাওয়ার সময় তাদের মনের মধ্যে কুকুরের আতংক বিরাজ করছে। ইতিমধ্যে কয়েকজন কুকুরের কামড়ে আহত হয়েছেন। এলাকাবাসী এই কুকুরের হাত থেকে পরিত্রান পাওয়ার জন্য সংশ্লিষ্ট প্রশাসনের হস্তক্ষেপ কামনা করছেন।
উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের কর্মকর্তা ডা. মাহাবুবুর রহমান বলেন, উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে কুকুরের কামড়ের ভ্যাকসিন নেই। তাই আক্রান্তদের ভ্যাকসিন দেয়া সম্ভব হচ্ছে না। জেলা হাসপাতালে ভ্যাকসিন দেয়া হয়। আক্রান্তদের প্রাথমিক চিকিৎসা দিয়ে জেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে থেকে এই সেবা নেয়ার পরামর্শ দেওয়া হয়।

দৈনিক আলোর প্রতিদিন এর প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।

পাঠকের মতামত: