করোনা লাইভ
আজকে আক্রান্ত : ৫৮৪ ◈ আজকে মৃত্যু : ১৬ ◈ মোট সুস্থ্য : ৪৭৫,০৭৪
প্রচ্ছদ / সারাবিশ্ব / বিস্তারিত

লেবাননে তারেক রহমানের ৫৬তম জন্মদিন উদযাপন

২৩ নভেম্বর ২০২০, ৭:৩৪:১৯

মো জুয়েল রানা লেবানন প্রতিনিধি ঃ-লেবাননে কেক কাটার মধ্য দিয়ে পালন করা হয় বিএনপির ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান তারেক রহমানের ৫৬তম জন্মদিন। রবিবার লেবাননে হামরা আল রাইতেম নামক স্থানে কেন্দ্রীয় কমিটির সাধারন সম্পাদক ইয়াকুব মোল্লার বাসায় জন্মদিনের আলোচনা সভাটি অনুষ্ঠিত হয়।

করোনা ভাইরাস সংক্রমণের ফলে লকডাউনের থাকা অবস্থায় ছোট্ট পরিসরে আয়োজন করা হয় অনষ্ঠাটি। অনুষ্ঠানের শুরুতেই পবিত্র কোরআন তেলাওয়াত সহ দলীয় ও জাতীয় সংগীত পরিবেশন করা হয়।

অনুষ্ঠানে প্রধান বক্তা ছিলেন, লেবানন বিএনপি কেন্দ্রীয় কমিটির সাধারন সম্পাদক ইয়াকুব মোল্লা ও বিশেষ বক্তা ছিলেন যুবদলের সহ দপ্তর সম্পাদক আসাদুল কবির।

সেচ্ছাসেবক দলের সাংগঠনিক সম্পাদক আবদুল হান্নান ও সাংগঠনিক সম্পাদক আবদুল কাইয়ুমের সঞ্চালনায় এবং লেবানন বিএনপি কেন্দ্রীয় কমিটির ভারপ্রাপ্ত সভাপতি আবদুল আহাদ রহমানের সভাপতিত্বে, প্রধান অতিথি ছিলেন লেবানন বিএনপি কেন্দ্রীয় কমিটির প্রতিষ্ঠাতা সদস্য ভাসানী মোল্লা।

এতে বিশেষ অতিথি ছিলেন, আল বুরুজ শাখার সভাপতি জাহিদ সরকার, মহিলা সম্পাদিকা রিতা বেগম, হামরা বরধান শাখার সভাপতি নুরুল করিম,সাংগঠনিক সম্পাদক গাজী মনির, প্রচার সম্পাদক বেলাল, হাইচিল্লুম শাখার সভাপতি জাবেদ হোসেন, সাংগঠিক সম্পাদক কামাল হোসেন, সৈফাত শাখার সভাপতি এস, কে শারফিন, সাধারন সম্পাদক আবির হোসেন, কাওছার আহমেদ, মহিলা দলের সভাপতি রিতা আক্তার রিতু,সিনিয়র সহসভাপতি মিনা বেগম, সাধারণ সম্পাদিকা রেখেনা পারভিন জান্নাত, সাংগঠনিক সম্পাদিকা কলি খান, লেবানন শ্রমিক দলের সাধারণ সম্পাদক হৃদয় খান, লেবানন যুবদল কেন্দ্রীয় কমিটির ভারপ্রাপ্ত সভাপতি আবদুল করিম, সহসভাপতি আফজাল হোসেন, আনোয়ার হোসেন আকন, সাংগঠনিক সম্পাদক আনোয়ার হোসেন,

সভার প্রধান বক্তা সাধারণ সম্পাদক ইয়াকুব মোল্লা বলেন, তারেক রহমান এমনই একজন নেতা যার বহুমুখি প্রতিভায় দেশের জনগণের কাছে অতি প্রিয়। বিএনপিসহ সাধারণ মানুষের কাছে তিনি একজন জনপ্রিয় নেতা। জনগণকে আপন করে নেয়ার যাদুকরী ক্যারিষমেটিক নেতৃত্ব মার্জিত ব্যবহারের কারণে আর এসব গুণাবলী তাকে বিষ্ময়কর জনপ্রিয়তার অধিকারী করে তুলে।

তিনি আরও বলেন, তারেক রহমান এদেশের মা, মাটি ও মানুষের সন্তান। এই দেশের মা, মাটি ও মানুষকে কেন্দ্র করেই তার সামাজিক ও রাজনৈতিক কর্মকান্ড শুরু করেন। শহীদ প্রেসিডেন্ট জিয়াউর রহমানের পথ ধরেই শহর কেন্দ্রিক রাজনীতিকে ছড়িয়ে ছিটিয়ে দিয়েছিলেন হাটে, মাঠে-ঘাটে, গ্রামে-গঞ্জে। এই কারণেই তৃণমূল রাজনীতির প্রাণপুরুষ হয়ে উঠেন তারেক রহমান। তারেক রহমান রাজনীতিতে এসে বুঝতে পেরেছিলেন দেশের উন্নয়ন চাইলে গ্রামে-গঞ্জের উন্নয়ন করতে হবে। তাই তিনি পিতা শহীদ প্রেসিডেন্ট জিয়াউর রহমানের পথ অনুসরণ করেই গ্রাম-গঞ্জের পথে-প্রান্তে ঘুরে বেড়িয়েছেন। তিনি গ্রাম অঞ্চলের কৃষক-মজুর-খেটে খাওয়া গরীব-দু:খী মানুষের কাছে গরীব দুঃখী মানুষের কাছে গিয়ে তাদের সুখ-দুঃখ সম্পর্কে জানতে চেয়েছেন।

ইয়াকুব বলেন, দু:খী মানুষের কাছে দাঁড়িয়েছেন। তারেক রহমান বিএনপির কেন্দ্রীয় নেতা ও তৃণমূল পর্যায়ের কর্মীদের মাঝে সেতুবন্ধন তৈরী করতে তৃণমূল ইউনিয়ন প্রতিনিধি সম্মেলন করেছিলেন। এসব সম্মেলনে কর্মীরা দলীয় রাজনীতি ও সংগঠন সম্পর্কে মন খুলে কথা বলেছিলেন। এ সভাগুলোতে তারেক রহমান মূলত দলের গঠনতন্ত্র, উদ্দেশ্য ও ভবিষ্যত পরিকল্পন নিয়ে নেতাকর্মীদের সাথে দীর্ঘ মতবিনিময় করেছেন। কিন্তু তারেক রহমান সরাসরি রাজনীতিতে অংশগ্রহণ করার পর তার জনপ্রিয়তা ও জাতীয়তাবাদী শক্তির জাগরণে বিএনপি ও তারেক রহমানের বিরুদ্ধে দেশী-বিদেশী ষড়যন্ত্র শুরু হয়। সেই ষড়যন্ত্রের অংশ হিসেবে ২০০৭ সালের ১/১১ সৃষ্টি হয় এবং তারেক রহমানকে গ্রেফতার করে অমানষিক নির্যাতন করা হয়।

বিশেষ বক্তা আসাদুল কবির বরেন,তারেক রহমানের অভাবনীয় জনপ্রিয়তায় ঈর্ষান্বিত হয়ে ওয়ান ইলেভেনের সরকার গভীর চক্রান্তের নীলনক্সার চক একেছিল। তার নির্মম বলি হন আধুনিক রাজনীতির এই আইডল। সেনা নিয়ন্ত্রিত সরকার তাকে গ্রেফতার করে নির্মম নির্যাতন করে। বর্তমান সরকার ক্ষমতায় এসে আরো অনেক মিথ্যে মামলায় জড়িত করেছে। এই অবৈধ বাকশালি সরকার অনেক চেষ্টা করেও একটি মামলা প্রমাণ করতে পারেনি।

তিনি আরো,বলেন ঐক্যবদ্ধ অগ্রগতির অমোঘ দাবি উৎপাদনের রাজনীতি এবং জনগণের গণতন্ত্র। এই কর্মসূচি নিয়ে একদিন গ্রামের পর গ্রামে ছুটে গেছেন বাংলাদেশের সফল রাষ্ট্রনায়ক জিয়াউর রহমান। তারই প্রদর্শিত পথে পা রাখলেন তারেক জিয়া এবং গণমানুষের প্রাণের ছোঁয়া পেয়ে তিনিও গণতন্ত্র ফেরাতে পারলে জনগণের স্বপ্ন তথা দেশনেত্রী বেগম খালেদা জিয়ার স্বপ্ন বাস্তবায়ন করতে পারব।

সভায়, সাবেক প্রধানমন্ত্রী বেগম খালেদা জিয়ার আরোগ্য ও দীর্ঘায়ু কামনা, বিএনপির ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান তারেক রহমানের সুস্থ্যতা কামনা এবং বহুদলীয় গণতন্ত্রের প্রবক্তা শহীদ প্রেসিডেন্ট জিয়াউর রহমান ও মরহুম আরাফাত রহমান কোকোর মাগফেরাত কামনা করে বিশেষ মোনাজাত করা হয়।পরিশেষে কেক কাটার মধ্য দিয়ে অনুষ্ঠানে সমাপ্তি করা হয়।

দৈনিক আলোর প্রতিদিন এর প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।

পাঠকের মতামত: