করোনা লাইভ
আজকে আক্রান্ত : ১,৬০৪ ◈ আজকে মৃত্যু : ১৯ ◈ মোট সুস্থ্য : ৩২২,৭০৩

লোহাগড়ায় কচুর বৈই চাষে ভাগ্যবদল

১৬ সেপ্টেম্বর ২০২০, ১১:৩৯:৫৩

জহুরুল হক মিলু, লোহাগড়া (নড়াইল) প্রতিনিধি ঃ
নড়াইলের লোহাগড়া উপজেলায় নানা জাতের সবজি চাষে সক্ষমতা অর্জন করছে। এই উপজেলার সবজি নিজ উপজেলার চাহিদা মিটিয়ে অন্য
উপজেলা ও জেলায় যাচ্ছে। এক সময় ছিল এই উপজেলার মানুষ ধান, পাট ছাড়া অন্য ফসল চাষে তেমন আগ্রহী ছিল না। এখন সেই চিত্র নেই। এখন সচ্ছল কৃষক ধান, পাটসহ নানা জাতের সবজি চাষ করছে। প্রচলিত ও অপ্রচলিত সবজি চাষ করছে। প্রায় প্রতিটি গ্রামে কৃষকের রয়েছে নানা জাতের ফলের বাগান। এসব ফল কৃষক বানিজ্যিক ভাবে চাষ করছে। তাই প্রচলিত কৃষি পন্যের ক্ষতি সবজি ও ফল চাষে উঠে
আসছে। এভাবেই সচ্ছল কৃষক পরিবার গুলো বিশ্বায়নের যুগে ও প্রতিযোগীতায় ঠিকে যাচ্ছে। এমনি অবহেলিত সবজি কচু। কৃষি অর্থনীতিতে এই ফসলটি চাষে কৃষক উৎসাহিত হয়ে উঠছে। কচু চাষ অত্যন্ত লাভজনক। গত বছর লোহাগড়া উপজলার চাচই গ্রামের তরুন কৃষক মো. উজির শিকদার পঞ্চাশ শতাংশ জমিতে কচুর বৈই চাষ করে এক লাখ টাকা আয় করেছে। এবারেও পূনরায় পঞ্চাশ শতাংশ জমিতে কচুর বৈই চাষ করেছে। আবহাওয়া কচুর বৈই চাষের অনুকূলে রয়েছে। তাই বৈই কচুর বাম্পার ফলন আশা করছে। কচু চাষ করে ভাগ্যবদল হয়েছে তরুন কৃষক মো. উজির শিকদারের।

কচু চাষি মো. উজির শিকদার জানান, ধান, পাট চাষ করে আর্থিক ভাবে লাভবান হতে পারিনি। তবে নিজ পরিবারের খাদ্য চাহিদা ও খড়ির
চাহিদা পূরন করতে প্রতিবছর ধান ও পাট চাষ করি। পরিবারের আর্থিক সচ্ছলতা আনতে সবজি চাষ করে আসছি। শীত মৌসুমে নানা জাতের
শাক সবজি, কুমড়া, আলু, মূলা চাষ করি। এবার পঞ্চাশ শতাংশ জমিতে বৈই কচু চাষ করেছি । এই সবজি গত বছর চাষ করার সময় গ্রামের অন্যান্য কৃষকগণ আমাকে পাগল বলেছে। গত বছর আমার আর্থিক সাফল্য দেখে এবার আমার দেখা দেখি কয়েক জন কৃষক চাষ করেছে। পঞ্চাশ শতাংশ জমিতে সবজির বাজার দর নিম্নমুখি হলেও ১ লাখ ৫০ হাজার টাকা উপার্জন হবে। বৈই কচুর দাম উঁচুমুখি হলে ২লাখ টাকাও হতে পারে বলে আশা করছি।

তিনি আরো বলেন, কচুর বৈই, কুড়া, কান্ড ও পাতা বিক্রয় হয়। বৈই কচু উৎপাদন শুরু হলে দাম পাওয়া গেলে ২০/২৫ বার বৈই কচু উত্তোলন করা হবে। তারপর পাতা ও কান্ড বিক্রয় করা হবে। সর্বশেষ কচুর কুড়া বিক্রয় করা হবে। বাজারে দাম কম থাকলে ১০/১৫ বার কচুর বৈই উত্তোলন করা হবে। তারপর পাতা, কান্ড ও কুড়া তুলে বিক্রয় করা হবে।

দৈনিক আলোর প্রতিদিন এর প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।

পাঠকের মতামত: