করোনা লাইভ
আজকে আক্রান্ত : ২,২৫২ ◈ আজকে মৃত্যু : ২৪ ◈ মোট সুস্থ্য : ৩৯০,৯৫১

লোহাগড়ায় মৃৎ শিল্প বিলুপ্তির পথে

২৩ আগস্ট ২০২০, ১২:৪৯:০১

জহুরুল হক মিলু, লোহাগড়া (নড়াইল) প্রতিনিধি

মাটির হাঁড়ি-পাতিল, পুতুল, খেলনা ইত্যাদি দ্রব্যের উৎপাদন ব্যয় বৃদ্ধির তুলনায় বিক্রয় মূল্য বৃদ্ধি না পাওয়ায় মৃৎশিল্পের ওপর নির্ভরশীল কুমার সম্প্রদায়ের অনেকেই তাদের পৈত্রিক পেশা ছেড়ে দিতে বাধ্য হচ্ছে। ফলে নড়াইল জেলার লোহাগড়া উপজেলার ঐতিহ্যবাহী মৃৎশিল্প আজ বিলুপ্তির পথে।

নড়াইলের লোহাগড়া উপজেলাধীন কুন্দশী গ্রামের গোলক পাল, তপন পাল ও পরিতোষ পাল জানান, মৃৎশিল্পের জন্য প্রয়োজনীয় উপকরণ যথা- এঁটেল মাটি, খেজুর গাছ, কলা গাছের জ¦ালানী, বিছালী জাতীয় খড় কুটো, লাল মাটি, রং ইত্যাদি জিনিসের দাম অত্যাধিক বেড়েছে। তাছাড়া উন্নতমানের খাঁটি রং পাওয়াও মুশকিল। আগে মাটি সংগ্রহে কুমাদের কোন টাকা পয়সা লাগতো না। কিন্তু এখন টাকা পয়সা ছাড়া এঁটেল মাটি সংগ্রহ করা যায় না।

ওই উপজেলার কুন্দশী গ্রামের যে কটি কুমার পরিবার আজও বর্তমান নানা সমস্যা ও সংকটের যাতাকলে এসব মৃৎশিল্পী ও তাদের পরিবার বর্গের জীবনে নেমে এসেছে ঘোর অন্ধকার। আজ তারা এ পেশা ছেড়ে দিতে বাধ্য হচ্ছে। কিন্তু অন্য কোন বিকল্প পেশার সঙ্গে পরিচয় না থাকায় তারা আজ চরম দুর্দিনের মুখোমুখি। ওই গ্রামের কয়েকজন মৃৎশিল্পী জানান, অধিকতর স্থায়ী এলুমিনিয়াম ও প্লাস্টিকের জিনিসপত্রের চাহিদা বৃদ্ধির ফলে বাজারে মাটির তৈরী হাঁড়ি-পাতিলের কদর কমে গেছে। সঙ্গে সঙ্গে কুমার সম্প্রদায়ের মধ্যে দেখা দিয়েছে চরম হতাশা।

দৈনিক আলোর প্রতিদিন এর প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।

পাঠকের মতামত: