করোনা লাইভ
আজকে আক্রান্ত : ৩,২০১ ◈ আজকে মৃত্যু : ৪৪ ◈ মোট সুস্থ্য : ৭৬,১৪৯
প্রচ্ছদ / সারাদেশ / বিস্তারিত

শরণখোলায় করোনা পরিস্থিতিতে লকডাউনের সুযোগে শতাধিক চুরি

৫ জুন ২০২০, ৬:৪৬:২২

মাসুম বিল্লাহ, শরণখোলা (বাগেরহাট) প্রতিনিধিঃ
করোনা পরিস্থিতিতে গত ২৫এপ্রিল লকডাউনের শুরু থেকে দুই মাসে বাগেরহাটের শরণখোলায় উপজেলার বিভিন্ন গ্রাম ও হাটবাজারে চুরির হিঁড়িক পড়েছে। সিঁদ কেটে টাকা-পয়সা, সোনা-দানা থেকে শুরু করে গরু-ছাগল, হাঁস-মুরগি, ভ্যান-ইজিবাইক, সোলার প্যানেল, ব্যাটারী এমনকি ঘেরের মাছ পর্যন্ত লুটে নিচ্ছে চোর ও দুর্বৃত্তরা।
চোরের উপদ্রবে অতিষ্ঠ হয়ে উঠেছে উপজেলাবাসী এমনকি চুরির প্রবনতা ঠেকাতে রাত জেগে পাহারাও দিচ্ছে গ্রামের মানুষ। একের পর এক চুরির ঘটনা ঘটলেও প্রশাসনের কোনো তৎপরতা না থাকায় মানুষের মধ্যে ক্ষোভের সৃষ্টি হয়েছে। আইনশৃঙ্খলা পরিস্থিতির অবনতি হওয়ার আশঙ্কা দেখা দিয়েছে। উপজেলার চারটি ইউনিয়নের সংশ্লিষ্ট ইউপি সদস্য ও ক্ষতিগ্রস্ত পরিবারের মাধ্যমে এসব চুরির তথ্য পাওয়া গেছে।
তবে, শরণখোলা থানা পুলিশ চুরির বিষয়টি স্বীকার করতে নারাজ। দু-একটি ছিঁচকে চুরির ঘটনা ঘটলেও এনিয়ে থানায় কেউ অভিযোগ করেনি।
বুধবার (৩জুন) একরাতে পাঁচ বাড়িতে সিঁদ কেটে চোরেরা স্বর্ণালংকার, মোবাইল ফোন নিয়ে গেছে। খোন্তাকাটা ইউনিয়নের পশ্চিম রাজৈর গ্রামে ইউনুচ মোল্লার ঘরে, একই রাতে আলামিন হাওলাদার, শামিম হাওলাদার, জাহাঙ্গীর আলম বাচ্চুর বাড়ির জানালার পাশে থাকা ১৫হাজার টাকা দামের মোবাইল ফোন নিয়ে যায়। তবে দুলাল শিকদারের ঘরে সিঁদ কাটার সময় টের পাওয়ায় চোরেরা পালিয়ে যায়।
ধানসাগর ইউনিয়নের উত্তর ও দক্ষিণ বাধাল গ্রামে কয়েকটি চুরি হয়েছে। গত ২জুন রাতে বিপুল হালদারের অটোভ্যান, এর আগে হানিফ সরদারের বাড়িতে সিঁদ কেটে ১০হাজার টাকা ও একজোড়া সোনার কানের দুল, বাশার সরদারের মোবাইল, ঘূর্ণিঝড় আম্ফানের রাতে মোস্তফা হাওলাদারের অটোভ্যান ও আলতাফের ইজিবাইকের ব্যাটারী নিয়ে যায় চোরেরা।
গত ৩০মে রাতে সংঘবদ্ধ একটি চক্র মঠেরপাড় গ্রামে আব্দুর রশিদ আকন, সিদ্দিক হাওলাদার, মুক্তা তালুকদার এবং নলবুনিয়া গ্রামের আনিস খাঁনের বাড়িতে সিঁধ কেটে ঘরে ঢুকে মালামাল লুটের চেষ্টা চালায়। এসময় ঘরের লোকজন টের পাওয়ায় চোরেরা পালিয়ে যায়।
ঈদের আগের দিন ২৪মে রাতে ধানসাগর ইউনিয়নের রাজাপুর বাজারে সালাম সরদারের কাপড়ের দোকান ও রেজাউলের গ্যারেজ থেকে চোরেরা প্রায় তিন লক্ষাধিক টাকার মালামাল নিয়ে গেছে। একই রাতে রায়েন্দা ইউনিয়নের খাদা গ্রামের নূরুল ইসলাম হাওলাদার ও মাসুম হাওলাদারের বাড়িতে সিঁধ কেটে স্বর্ণালঙ্কারসহ লক্ষাধিক টাকার মালামাল নিয়ে যায় চোরেরা।
২১মে রাতে নলবুনিয়া হিন্দুপাড়ায় শাহজাহান আকনের বাড়িতে সিঁধ কেটে ঘরে ঢুকতে না পেরে গোয়ালে থাকা দুটি গরু নিয়ে যাবার সময় স্থানীয় লোকজন টের পেয়ে চোরদের ধাওয়া করলে মাঠের মধ্যে গরু ছেড়ে দিয়ে পালায়। একই রাতে সাউথখালী ইউনিয়নের সোনাতলা গ্রাম থেকে সোহরাব মল্লিকের ৬০হাজার টাকার দামের একটি গরু নিয়ে যায়।
গত ২৫এপ্রিল দিবাগত রাতে খোন্তাকাটার রাজৈর গ্রামে ছাত্রলীগ নেতা আসাদ হাওলাদারের বাড়িতে সিঁদ কেটে দেড় লাখ টাকা, স্বর্ণাঙ্কারসহ প্রায় ৫লাখ টাকার মালামাল নিয়ে যায় চোরেরা।
এছাড়া ধানসাগর ইউনিয়নের বাওড় গ্রামের ডালিমের ইজিবাইক ও সোলার ব্যাটারী, রাজাপুর গ্রামের শিক্ষক সন্তোষ হালদারের বাড়িতে সিঁদ কেটে ৫০হাজার টাকাসহ দেড় লাখ টাকার মালামাল, পান্না লালা মৈত্রের দুই লাখ টাকার মালামাল, শুকুমার শিকদারের এক লাখ টাকার মালামাল, হোগলপাতি ফরাজী বাড়ি সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে তালা ভেঙে সোলার প্যানেল, ব্যাটারী, বাচ্চাদের চারু-কারু সরঞ্জামসহ লক্ষাধিক টাকার মালামাল এবং রায়েন্দা ইউনিয়নের উত্তর কদমতলা গ্রামের কবির হাওলাদাদারের একটি অটোভ্যান নিয়ে যায় চোরেরা। সাউথখালী ইউনিয়নের রায়েন্দা-তাফালবাড়ী গ্রামে রফিকুল হাওলাদারের বাড়িতে সিঁদ কেটে সোনাদানসহ প্রায় তিন লাখ টাকার মালামাল, উত্তর সাউথখালী গ্রামে দুলাল খান, হাকিম খান ও আমির হাওলাদারের বাড়ি থেকে মোবাইলসহ মালামাল নিয়ে যায়। ওই গ্রামের মানুষ চুরি ঠেকাতে রাঁত জেগে পাহারা দিচ্ছে বলে স্থানীয় ইউপি সদস্য মোঃ সাইফুল হালিম শাহ জানিয়েছেন।
এব্যাপারে শরণখোলা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) এসকে আব্দুল্লাহ আল সাইদ বলেন, চুরির বিষয়ে এখন পর্যন্ত থানায় কেউ কোনো অভিযোগ করেনি। ছোটখাটো দু-একটি চুরির খবর শুনেছি। মাদকসহ এসব অপরাধ প্রবনতা ঠেকাতে শীগ্রই এলাকাভিত্তিক প্রতিরোধ কমিটি গঠন করা হবে। ##

দৈনিক আলোর প্রতিদিন এর প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।

পাঠকের মতামত: