করোনা লাইভ
আজকে আক্রান্ত : ১,৬৮১ ◈ আজকে মৃত্যু : ২৫ ◈ মোট সুস্থ্য : ৩২১,২৮১
প্রচ্ছদ / সারাদেশ / বিস্তারিত

শরণখোলা উপজেলা পরিষদ উপ-নির্বাচনকে ঘিরে ভোটারদের জল্পনা কল্পনা

১৭ সেপ্টেম্বর ২০২০, ৯:১৬:১০

মাসুম বিল্লাহঃ
বাগেরহাটের শরণখোলা উপজেলা পরিষদের উপ-নির্বাচনে মনোনয়ন প্রত্যাশী আওয়ামী লীগ নেতারা দৌড়ঝাঁপ শুরু করেছেন। তবে এ নির্বাচনে উপজেলা বিএনপির সাবেক সভাপতি খাঁন মতিয়ার রহমানের নির্বাচনে অংশগ্রহন করার জন্য মনোনয়ন পত্র সংগ্রহ করেছেন এবং নির্বাচন নিয়ে দলের তৃণমূলের নেতাকর্মী ও ভোটারদের মধ্যে আগ্রহ লক্ষ্য করা গেছে। ইতমিধ্যে চেয়ারম্যান পদে উপ-নির্বাচনের তফসিল ঘোষণা করেছে নির্বাচন কমিশন। তফসিল অনুযায়ী ২৩ সেপ্টেম্বর মনোনয়নপত্র জমাদানের শেষ তারিখ। ২৬ সেপ্টেম্বর যাচাই-বাছাই অনুষ্ঠিত হবে। ৩ অক্টোবরের মধ্যে প্রার্থিতা প্রত্যাহার এবং ২০ অক্টোবর ভোটগ্রহণ অনুষ্ঠিত হবে।

এদিকে দলের মনোনয়ন প্রত্যাশীরা আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় কার্যালয় থেকে মনোনয়নপত্র সংগ্রহ করার প্রস্তুতি শুরু করেছেন। তবে কে হচ্ছেন দলীয় প্রার্থী তা আওয়ামী লীগের সভাপতি শেখ হাসিনার মনোনয়ন বোর্ডের সভার পর জানা যাবে।

আওয়ামী লীগের মনোনয়ন পেতে আগ্রহীদের দৌড়ে রয়েছেন শরণখোলা উপজেলা উপজেলা আওয়ামী লীগের সাবেক সহ-সভাপতি সাউথখালী ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান বীর মুক্তিযোদ্ধা মোজাম্মেল হোসেন হাওলাদার, উপজেলা আওয়ামী লীগের সাবেক সাধারণ সম্পাদক সাবেক ভাইস চেয়ারম্যান বীর মুক্তিযোদ্ধা এম সাইফুল ইসলাম খোকন, সাবেক ডাকসু নেতা আব্দুল হক হায়দার, উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক আজমল হোসেন মুক্তা, রায়েন্দা ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান উপজেলা যুবলীগের আহবায়ক আসাদুজ্জামান মিলন, প্রয়াত শরণখোলা উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান মরহুম কামাল উদ্দীন আকনের পুত্র রায়হান উদ্দিন শান্ত।

রায়হান উদ্দিন শান্ত বলেন, আমার পিতার আদর্শকে লালন করে উপজেলা বাসীর সুখ-দুঃখের অংশীদার হতে উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান পদে নির্বাচনের জন্য দলীয় মনোনয়নপত্র সংগ্রহ করব। দল আমাকে যোগ্য মনে করলে মনোনয়ন দেবে। দলীয় সভাপতি যাকে এই মনোনয়ন দেবেন আমি তার সাথে কাজ করব।

শরণখোলা উপজেলাকে একটি আদর্শ ও মডেল উপজেলা হিসাবে গড়ে তোলার লক্ষ্যে দলীয় প্রধানের সুদৃৃষ্টি কামনা করে রায়েন্দা ইউানয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান আসাদুজ্জামান মিলন জানান, দল চাইলে এলাকার উন্নয়নে নিজেকে সমর্পন করতে রাজি আছি।

সাবেক ডাকসু সদস্য আব্দুল হক হায়দার জানান, দলীয় প্রধান আওয়ামী লীগ সভানেত্রী যদি মনে করেন শরণখোলা উপজেলাবাসীর সার্বিক উন্নয়নে আমাকে প্রয়োজন তাহলে আমি জনগনের সেবক হিসাবে কাজ করতে চাই।

উপজেলা আওয়ামী লীগের সাবেক সাধারণ সম্পাদক আলহাজ্জ এম সাইফুল ইসলাম খোকন বলেন, সৎ, দুর্নীতি মুক্ত, দক্ষ ও কর্মঠ নেতৃত্ব দ্বারাই সম্ভব হবে জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের লালিত স্বপ্নের বাস্তবায়ন। সে লক্ষ্যে তিনি উপজেলা বাসীর সেবায় নিয়োজিত থাকার কথা জানান।

উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক আলহাজ্জ আজমল হোসেন মুক্তা বলেন, দলের মনোনয়ন পেতে আগ্রহীরা আবেদন পত্র ও জীবন বৃত্তান্ত জমা দিয়েছেন। দল কাকে মনোনয়ন দেবেন তা দলের সভাপতি ঠিক করবেন। দল যাকে মনোনয়ন দেবে আমরা তার বিজয় সুনিশ্চিত করার জন্য ঐক্যবদ্ধ ভাবে কাজ করব।

জেলা বিএনপির আহ্বায়ক এ.টি.এম আকরাম হোসেন তালিম বলেন, নির্বাচন নিয়ে কেন্দ্রকে অবহিত করা হয়েছে। ঐক্যজোটের প্রার্থী দেবে না বিএনপি একক দেবে, তা এখনো কেন্দ্র থেকে সিদ্ধান্ত আসেনি।

বাগেরহাট জেলা নির্বাচন কর্মকর্তা ফরাজী বেনজির আহমেদ বলেন, নির্বাচন কমিশন কর্তৃক ঘোষিত তফসিল অনুযায়ী আমরা গণবিজ্ঞপ্তি জারি করেছি। আগ্রহী প্রার্থীরা চাইলে মনোনয়নপত্র সংগ্রহ করতে পারবেন।

উল্লেখ্য, ২০১৯ সালের ৫ ডিসেম্বর শরণখোলা উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান কামাল উদ্দিন আকনের মৃত্যুতে পদটি শূন্য হয়।

দৈনিক আলোর প্রতিদিন এর প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।

পাঠকের মতামত: