fbpx
প্রচ্ছদ / সারাদেশ / বিস্তারিত

মতলব উত্তর উপজেলার

সহকারী কমিশনার ভূমি শুভাশীষ ঘোষের ঐকান্তিক প্রচেষ্টায় জলবদ্ধতা থেকে রক্ষা পেল দু’শতাধীক পরিবার

২০ আগস্ট ২০১৯, ১১:০৬:৪০

মতলব উত্তর উপজেলার ফরাজীকান্দি ইউনিয়নের দক্ষিণ রামপর গ্রামের প্রায় দু'শতাধীক পরিবারকে জলবদ্ধতার হাত থেকে রক্ষায় ড্রেনেজ নির্মাণ।

মতলব উত্তর উপজেলার ফরাজীকান্দি ইউনিয়নের দক্ষিণ রামপর গ্রামের প্রায় দু’শতাধীক পরিবারকে জলবদ্ধতার হাত থেকে রক্ষা করলেন সহকারী কমিশনার ভূমি শুভাশীষ ঘোষ।
মঙ্গলবার (২০ আগস্ট) সকালে এলাকার যুবকদের নিয়ে স্বেচ্ছাশ্রমের মাধ্যমে আংশিক খাল খনন করে ও পানি নিষ্কাশনের জন্য ড্রেনেজ নির্মাণ করে। জমে থাকা পানি নিষ্কাশন করেন।
দক্ষিণ রামপুরের মিজান সরকার ও হযরত বেপারীর বাড়ী সংলগ্ন সরকারী বিএস খাল পানি নিষ্কাশন খাল হিসেবে পরিচিত। ড্রেনেজ ব্যবস্থা না থাকায় দুই পাশের ডোবার পানির চাপে রাস্তাটি দেবে যাওয়া’সহ জলাবদ্ধতার সৃষ্টি হয়। যে কারনে সামান্য বৃষ্টিতেই তলিয়ে যাচ্ছে রাস্তা’সহ চারপাশ। বর্ষার মৌসুমে হাঁটু সমান জলের নিচে তলিয়ে যায় রাস্তা। তখন রাস্তাটি চলাচলের সম্পূর্ন অনুপোযোগী হয়ে পরে। দীর্ঘদিন খাল খনন না করা ও খালের উভয় পার্শ্বের জমি ভেঙ্গে খাল ভরাট হাওয়ার কারনে এ জলবদ্ধতার সৃষ্টি। ফরাজীকান্দি মাদ্রাসা ও চরকালিয়া উচ্চ বিদ্যালয়ে যাওয়ার একমাত্র রাস্তাটি জলবদ্ধতার কারনে পানি নীচে তলিয়ে যায়। বিধায় স্কুল ও কলেজে যেতে পারেনা গ্রামের কোমলমতি শিক্ষার্থীরা।
খবর পেয়ে সোমবার ১৯ (আগস্ট) সকালে পরিদর্শনে আসেন মতলব উত্তর উপজেলার সহকারী কমিশনার ভূমি শুভাশীষ ঘোষ। তিনি তাৎক্ষনিক জলাবদ্ধতার দূর করনের লক্ষ্যে এলাকার যুব সমাজ, জনপ্রতিনিধি ও সুধীজনদের সাথে মতবিনিময় করেন।

মতলব উত্তর উপজেলার ফরাজীকান্দি ইউনিয়নের দক্ষিণ রামপর গ্রামের প্রায় দু’শতাধীক পরিবারকে জলবদ্ধতার হাত থেকে রক্ষা করলেন সহকারী কমিশনার ভূমি শুভাশীষ ঘোষ।

এলাকাবাসী জানান, স্থানীয় মিজান সরকার ও হযরত আলী বেপারীর বাড়ির পার্শ্ববর্তী সড়কের অধিকাংশসহ আশ-পাশ এলাকার প্রায় দু’শতাধিক বাড়ি-ঘর জলাবদ্ধ হয়ে পড়েছে। এ সড়কটির দু’পাশের কোথাও কোন ড্রেনেজ ব্যবস্থা নেই। ব্যবহারিক পানি কোথাও যেতে না পেরে জমে থাকে রাস্তা জুড়ে। একযুগেরও বেশি সময় ধরে আমরা এই রাস্তা নিয়ে ভুগছি। বহুবার কর্তৃপক্ষের দৃষ্টি আকর্ষন করেও কোন সুরাহা মেলেনি। দীর্ঘদিনের সমস্যাটি আজ সমাধান করায় সহকারী কমিশনার ভূমি শুভাশীষ ঘোষ এর নিকট কৃতজ্ঞতা জ্ঞাপন করছি।
জলাবদ্ধতা প্রসঙ্গে সহকারী কমিশনার ভূমি শুভাশীষ ঘোষ বলেন, দক্ষিণ রামপুর গ্রামের দীর্ঘদিনের জলবদ্ধতার দূর করতে পেরে খুবই আনন্দিত। সমস্যা দূর করাই হচ্ছে আমাদের কাজ। ড্রেনেজ সংস্কার করে তাদের দুুঃখের অবসান করার চেষ্টা বরেছি মাত্র। স্থায়ী সমাধানের লক্ষ্যে আগামী দিন থেকে কাজের ধারা অব্যাহত থাকবে। এ সময় উপস্থিত ছিলেন- ফরাজীকান্দি ইউনিয়ন ভূমি সহকারী কর্মকর্তা মো. কামরুজ্জামান, ইউপি সদস্য সফিকুল ইসলাম পাটোয়ারী, টিপু সুলতান’সহ আরো অনেকে।

দৈনিক আলোর প্রতিদিন এর প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।

পাঠকের মতামত: