করোনা লাইভ
আজকে আক্রান্ত : ১,৫৮৬ ◈ আজকে মৃত্যু : ১৪ ◈ মোট সুস্থ্য : ৩১২,০৬৫
প্রচ্ছদ / সারাদেশ / বিস্তারিত

সাতক্ষীরায় ৫৬১ টি মন্ডপে চলছে দূর্গা বরণের প্রস্তুতি

১৭ অক্টোবর ২০২০, ১১:৪১:২৯

ইব্রাহিম খলিল সাতক্ষীরা প্রতিনিধি: সাতক্ষীরায় ৫৬১ টি মন্ডপে দূর্গা পূজা অনুষ্ঠিত
হবে। সারাদেশের ন্যায় সাতক্ষীরার হিন্দু ধর্মাবলম্বীরাও ব্যস্ত তাদের শক্তির দশভূজ মা দূর্গাকে বরণ
করতে। মন্ডপে মন্ডপে চলছে শেষ মুহুর্তের প্রস্তুতি, রং-তুলি শুভ্র আঁচড়। ২১ অক্টোবর পঞ্চমী তীথিতে
আক্ষরিক অর্থে এবারের দূর্গা পূজার আনুষ্ঠানিকতা শুরু হবে। ২৬ অক্টোবর দশমীতে প্রতিমা
বিষর্জনের মাধ্যমে শেষ হবে শারদী দূর্গা উৎসব। করোনা পরিস্থিতির কারণে এবারে পূজায়
বাড়তি উৎসবকে পরিহার করে স্বাস্থ্য বিধি ও সরকারি নিয়ম মেনে ধর্মীয় রীতি অনুশারে পূজা
আর্চণা সম্পূর্ণ করা হবে। তাই দেবী দুর্গাকে বরণ করে নিতে সাতক্ষীরার পূজা ম-পগুলোতেও
বইছে উৎসবের আমেজ। সনাতন ধর্মাবলম্বীদের সবচেয়ে বড় উৎসব এবার ধর্মীয় রীতি পালনের
মধ্যেই সীমাবদ্ধ থাকবে। স্বাস্থ্যবিধি পালন এবং করোনার সংক্রমণের ঝুঁকি বিবেচনায় নিয়ে
ষষ্ঠী পূজার মধ্য দিয়ে ২২ অক্টোবর শুরু হবে দুর্গাপূজা। বিগত বছর জেলার ৫৮৪টি মন্দিরে
দুর্গাপূজা অনুষ্ঠিত হলেও এবার সাতক্ষীরা সদর ও পৌরসভাতে ৯৭, কলারোয়া ও কলারোয়া
পৌরসভায় ৪১, আশাশুনিতে ১০৪, তালায় ১৮২, দেবহাটায় ২১, কালিগঞ্জে ৫১ ও শ্যামনগরে ৬৫টি
দুর্গাপূজার ম-প মিলিয়ে এবার জেলায় মোট ৫৬১টি ম-পে পূজার আয়োজন চলছে। করোনার
কারণে গত বছরের চেয়ে এবার ২৩টি ম-পে পূজা হচ্ছে না। প্রতি বছরই ম-পের সংখ্যা বাড়লেও
এবার কমেছে। সরেজমিনে সাতক্ষীরা পৌর এলাকার মায়ের বাড়ি মন্দির, কাটিয়া মন্দির, বড়বাজার
মন্দির, নারকেল তলা মন্দিরসহ জেলার বিভিন্ন পূজা ম-প ঘুরে দেখা যায় কাদা-মাটি, বাঁশ, খড়,
সুতলি দিয়ে শৈল্পিক ছোঁয়ায় তিল-তিল করে গড়ে তোলা দেবী দুর্গার প্রতিমায় রং তুলির
কাজ করতে ব্যস্ত সময় পার করছেন প্রতিমা তৈরির কারিগররা। অধিকাংশ মন্দির গুলোতে মায়ের
আগমন উপলক্ষে ইতিমধ্যে প্রতিমা তৈরির কাজ শেষ হয়েছে। শিল্পীর নিপুন হাতের ছোঁয়ায়
মৃম্ময়ী প্রতিমা ধীরে ধীরে দেবী রূপ ধারন করছে। করোনা মহামারি থেকে বিশ্ববাসীকে মুক্তির
প্রার্থনা জানিয়ে শারদীয়া দূর্গোৎসব উদযাপনের প্রস্তুতি নিয়ে এগিয়ে চলেছে বিভিন্ন
মন্দিরগুলোর আলোকসজ্জার কাজ। কিছুদিন পরেই অনুষ্ঠিত হতে যাওয়া সনাতন ধর্মীয় সর্ববৃহৎ
ধর্মীয় উৎসব শারদীয় দুর্গাপূজা পালনে নিজেদের মতো করে প্রস্তুতিও গ্রহণ করছেন সনাতন
ধর্মের মানুষ। দেবী দুর্গাকে বরণ করার পাশাপাশি পূজাকে আরও রঙিন করে তুলতে প্রস্তুত
পূজারিরাও। তবে এবার করোনার প্রভাবে পূজা ম-পের সংখ্যা আগের তুলনায় কম। অপরদিকে
ন্যায্যমূল্য না পাওয়ায় প্রতিমা শিল্পী ও কারিগরদের মাঝে দেখা দিয়েছে চরম হতাশা। করোনার
প্রভাব পড়েছে প্রতিমা শিল্পতেও। নিত্যপ্রয়োজনীয় দ্রব্যাদির ঊর্ধ্বগতির পাশাপাশি অধিক
টাকায় কারিগর নিয়োজিত করায় মুনাফা বঞ্চিত হচ্ছেন বলে জানান প্রতিমা শিল্পীরা।
সাতক্ষীরা জেলা পুলিশ সুপার মোহাম্মদ মোস্তাাফিজুর রহমান পিপিএম (বার) বলেন, দূর্গা
উৎসব উপলক্ষে পূজা মন্ডপের নিরাপত্তায় আমাদের সবধরণের প্রস্তুতি রয়েছে। পূজা আয়োজনে
সরকারি নির্দেশনাসমূহ মেনে চলার ব্যাপারে জেলা পুলিশ সতর্ক থাকবে। দর্শকরা যাতে
স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলে সেজন্য সকলের কাছে আহবান জানানো হয়েছে। শান্তি শৃংখলা রক্ষায়
মন্ডপ গুলোতে সরকারি এবং স্থানীয় উভয় পর্যায়ের নিরাপত্তা ব্যবস্থা নিশ্চিত করতে জেলা পুলিশের
পক্ষ থেকে ইতিমধ্যে বিভিন্ন উদ্যোগ গ্রহণ করা হয়েছে। তিনি আরো বলেন, করোনার সংক্রমণ
ঝূকিঁ এড়াতে প্রতিটা ম-পে একসাথে ২০জনের বেশি দর্শনার্থী প্রবেশ করতে পারবেনা
এবং প্রত্যেক ব্যক্তিকে মাস্ক পরিধান করে মন্দিরের ভিতর প্রবেশ করতে হবে। এছাড়াও প্রত্যেকটা
মন্দিরের প্রবেশমুখে হাত ধোওয়ার ব্যবস্থা গ্রহণ করতে মন্দির কমিটিকে নির্দেশনা দেওয়া
হয়েছে। মন্দিরগুলোতে কোনপ্রকার সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানের আয়োজন করতে পারবে না এবং
প্রতিমা বিসর্জনের ক্ষেত্রে তাদেরকে নির্দিষ্ট সময় ও সামাজিক দূরত্ব বজায় রাখতে হবে বলে
জানান তিনি।

দৈনিক আলোর প্রতিদিন এর প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।

পাঠকের মতামত: