করোনা লাইভ
আজকে আক্রান্ত : ৩,১৬৩ ◈ আজকে মৃত্যু : ৩৩ ◈ মোট সুস্থ্য : ১০৩,২২৭
প্রচ্ছদ / ক্যাম্পাস / বিস্তারিত

সাধারণ ছুটিতে সরকারের সফলতা বনাম জনগণের প্রাপ্তি

২৯ মে ২০২০, ১:৪৬:৫৩

করোনা ভাইরাস চীনের উহান থেকে শুরু হয়ে যখন বিশ্বের উন্নত দেশে তান্ডব চালাচ্ছে তখন থেকেই বাংলাদেশীরা এর ভয়াবহতা উপলব্ধি করতে শুরু করেছিল। বাংলাদেশে ৮ ই মার্চ প্রথম করোনা রোগী সনাক্তের মাধ্যমে ভাইরাসটির আনুষ্ঠানিক যাত্রা শুরু হয়। সরকারও জনগনকে সতর্ক করার জন্য নানা পদক্ষেপ গ্রহণ করে যার ফলশ্রুতিতে ২৬ শে মার্চ সরকার যোগাযোগ ব্যবস্থার সাথে সমন্বয় না করে প্রথম ১০ দিনের সাধারণ ছুটি ঘোষণা করে, জনগণ যেটাকে ঈদের ছুটি হিসেবে গ্রহন করে, এতে সরকার সুশীল সমাজে সমালোচিত হয়। পরবর্তীতে সরকার সুশীল সমাজের সমালোচনা আমলে নিয়ে যখন সব ধরনের যোগাযোগ ব্যবস্থা বন্ধ করে ধারাবাহিকভাবে লকডাউন ঘোষণা করা শুরু করল, তখন জনগন কারণে-অকারনে বাইরে বেড়ানোর চেষ্টা শুরু করে।প্রথম দিকে আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীসহ লকডাউন সফল করতে নিয়োজিতরা কিছু ভূল ত্রুটি ছাড়া সবক্ষেত্রে সফলতার স্বাক্ষর রেখেছেন বলে আমি মনে করি। ভাইরাসজনিত বিদ্যমান সমস্যায় সরকার শিল্পগোষ্ঠী থেকে তৃনমূল পর্যায়ে নানান প্যাকেজ ঘোষণা করে যেটা বড় বড় শিল্পগোষ্ঠীরা তাদের পুরো অংশ সুযোগ হিসাবে আদায়-কাচকলা’য় বুঝে নিলেও কিছু অসাধু রাজনীতিবিদের সিন্ডিকেটের কারনে তৃনমূলে যথাযথভাবে পৌঁছায় নাই, এ দায় তৃনমূলের শোষকগুষ্ঠি এড়াতে পারেনা।
যুদ্ধকালীন সময়ে রাষ্ট্রের কাছে যেমনঃ Right to food, Right to live সাংবিধানিক অধিকার হিসেবে দাবি করা যায় না তবুও রাষ্ট্র যথাসাধ্য চেষ্টা করবে এটাই রাষ্ট্রের কর্তব্য, এক্ষেত্রে রাষ্ট্র তার সামর্থ্যের মধ্যে থেকে সর্বোচ্চ করার আপ্রাণ চেষ্টা করেছে বলে আমার কাছে মনে হয়েছে। এই দীর্ঘ সময় সাধারণ ছুটির পর সরকার অবশেষে রাষ্ট্রের সার্বিক পরিস্হিতি চিন্তা করে জনস্বার্থে সাধারণ ছুটি বৃদ্ধি না করার সিদ্ধান্ত গ্রহণ করেছে। রাষ্ট্রের যেমন নাগরিকের প্রতি অনেক দায়িত্ব কর্তব্য আছে তেমনি নাগরিকেরও রাষ্ট্রের প্রতি অনেক দায়বদ্ধতা আছে যেটা আমাদের বিভিন্ন কাজের মাধ্যমে পালন করতে হবে। করোনা মহামারীতে আমরা রাষ্ট্রকে যার যার জায়গা থেকে সার্বিকভাবে সহযোগিতা করব এটা নাগরিকের কাছে রাষ্ট্রের প্রত্যাশা।পরিশেষে করোনা ভাইরাসের মত এই অদৃশ্য শক্তির সাথে মোকাবেলা করার জন্য আমাদের যুদ্ধ ক্ষেত্রের মত দায়িত্বশীল আচরণ করতে হবে এবং বিশ্বস্বাস্থ্য সংস্থার নির্দেশনা মেনে এই অদৃশ্য শক্তির মোকাবেলা করতে আরও বেশি দায়িত্বশীল মনোভাব পোষণ করতে হবে দেশ ও দশের মঙ্গলের জন্য। নতুবা পরিবার ও রাষ্ট্রের অপূরনীয় ক্ষতি হবে আপনার আমার মৃত্যুর মাধ্যমে।

মোঃশাহারুন হাওলাদার
শিক্ষার্থী ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়।

দৈনিক আলোর প্রতিদিন এর প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।

পাঠকের মতামত: