fbpx
প্রচ্ছদ / শিক্ষা / বিস্তারিত

সোহাগীকে যৌন নির্যাতন হত্যার আসামী মোবারক হোসেন

২৬ মে ২০১৮, ৭:৩৯:৪৪

সোহাগীকে যৌন নির্যাতন হত্যার আসামী মোবারক হোসেন


ত্রিশাল থেকে মোঃরুবেল আকন্দ :-
ময়মনসিংহ ত্রিশাল উপজেলা ১নংধানিখোলা ইউনিয়ন গয়সাপাড়া গ্রামের অতিদরিদ্র মোঃ নজরুল ইসলামের মেয়ে মোছাঃ হাসনা হেনা সোহাগী (১২)। ৭নং হাঁপানিয়া গয়সাপাড়া সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ের ৫ম শ্রেণীর মেধাবী ছাত্রী মোছাঃ হাসনা হেনা সোহাগী (১২) প্রতিদিনের মতো গত ৫ মে শনিবার সকাল বেলা ন্যায় বাচ্চাটি ফাওরানবাড়ি ফূরকানিয়া মাদ্রাসা মক্তবে পড়তে যাই। মক্তব ছুটির সময় হলে সকল ছাত্রীদের মোবারক হুজুর চলে জেতে বলে এবং মোছাঃ হাসনা হেনা সোহাগী (১২) নামে মেয়েটিকে বাসা থেকে পানি কৌশলে তাকে একটি কক্ষে নিয়ে উপর্যুপরি ধর্ষণের চেষ্টা করে। ধর্ষণের ঘটনা দেখতে পাই সোহাগী চাচা মোঃ সেলিম মিয়া বলেন আমি প্রতিদিনের মতো গত ৫ মে শনিবার সকাল বেলা ফাওরানবাড়ি ফূরকানিয়া মাদ্রাসা অজু খানায় হাত মুখ ধুইতে গেলে হুজুরের রুম থেকে চিৎকারে শোনা যায়। তখন আমি রুম দেখি সোহাগীকে মোবারক হোসেন ‌(৩৫) ধর্ষণের চেষ্টা করছে। সোহাগীর বান্ধবী মোছাঃ রিনি আক্তার (১২) বলেন গত তিন মাস ধরে মোবারক হুজুর আমাদের শরীলের বিভিন্ন জায়গা হাত দিতেন আমরা তার প্রতিবাদ করলে হুজুর ভয় দেখাতো আর বলতেন আমার কথা মত না চললে তোমাদের খতি হবে। হুজুর মোবারক হোসেন চরমোনাইর পীরের মুরিদ। শিশু সোহাগী এলাকার লোকজনের লজ্জা গিনার ভয়ে নিজ বাড়িতে ঘরে বাসের ধন্না সাথে গলায় দড়ি দিয়ে আত্মহত্যা চেষ্টা করে। পরিবারের লোকজন উদ্ধার করে সোহাগীকে ময়মনসিংহ মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নিয়ে গেলে সেখানে ডাক্তার তাকে মৃত্যু ঘোষণা করেন। বাচ্চাটির বাবা বাদী হয়ে ত্রিশাল থানায় একটি মামলা দায়ের করেন, পরে ত্রিশাল থানা পুলিশ ঐ মাদ্রাসার ধর্ষক শিক্ষক মোবারক হোসেনকে গ্রেফতার করেন। সোহাগীর বাবা নজরুল ইসলাম বলেন বিভিন্ন রাজনীতিক নেতারা আমার মেয়ের মৃত্যুতে তাদের মনে হয়। অনেক লাভ হয়েছে ফেইসবুকে ছবি পোষ্ট করে দেখছে কত লাইক পরে এ ভাবে কি আমার মেয়ের মৃত্যুর বিচার পাবো।

দৈনিক আলোর প্রতিদিন এর প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।

পাঠকের মতামত: