প্রচ্ছদ / সম্পদকীয় / বিস্তারিত

৬৫টি ভাষায় অনুদিত পবিত্র কোরআনের বিরল প্রদর্শনী

১০ জানুয়ারি ২০২০, ১১:০১:১২

পবিত্র কোরআনের শিক্ষা পৃথিবীর প্রান্তে প্রান্তে পৌঁছে দেয়ার লক্ষ্যেই আহমদিয়া মুসলিম জামা’ত বিভিন্ন ভাষায় পবিত্র কোরআনের অনুবাদ করে যাচ্ছে।

১০ জানুয়ারি ২০২০ রোজ শুক্রবার সাতক্ষিরা জেলার শ্যামনগর থানার যতিন্দ্রনগরে আহমদিয়া মুসলিম জামাত সুন্দরবনের জামে মসজিদ কমপ্লেক্সে ৪দিন ব্যাপী ৬৫টি ভাষায় অনুদিত পবিত্র কোরআন প্রদর্শনীর উদ্বোধন করেন লন্ডন প্রবাসী সেন্ট্রাল বাংলাডেস্কের ইনচার্জ মাওলানা ফিরোজ আলম এবং আহমদিয়া মুসলিম জামাত বাংলাদেশের জাতীয় আমীর আলহাজ্জ মাওলানা আব্দুল আউয়াল খান চৌধুরী। এসময় আরো উপস্থিত ছিলেন স্থানীয় আমীর জিএম মোবারক আহমদ এবং মাওলানা শাহ মোহাম্মদ নুরুল আমীন।

সুন্দরবনে এই প্রথম বারের মতো পবিত্র কোরআনের ৬৫টি ভাষায় সম্পূর্ণ অনুবাদ প্রদর্শনীর আয়োজন করে আহমদিয়া মুসলিম জামা’ত, বাংলাদেশ। এটি নি:সন্দেহে পবিত্র কোরআনের বিরল এক প্রদর্শনী। এছাড়া আহমদিয়া মুসলিম জামাতের পক্ষ থেকে এ পর্যন্ত প্রায় ১০০টি ভাষায় সম্পূর্ণ কোরআন অনুবাদের কাজ সমাপ্ত হয়েছে যা প্রিন্টিং পর্যায়ে আছে।

এ বিষয়ে আহমদিয়া মুসলিম জামা’ত, বাংলাদেশের জাতীয় আমীর আলহাজ্জ মাওলানা আব্দুল আউয়াল খান চৌধুরী বলেন- ‘পবিত্র কোরআনের শিক্ষা পৃথিবীর প্রান্তে প্রান্তে পৌঁছে দেয়ার লক্ষ্যেই আহমদিয়া মুসলিম জামা’ত বিভিন্ন ভাষায় পবিত্র কোরআনের অনুবাদ করে চলছে। ভাষাবিদদের হিসাব অনুযায়ী পৃথিবীতে বর্তমানে প্রায় ৪০০০ ভাষায় মানুষ কথা বলে থাকে। বর্তমানে আহমদিয়া মুসলিম জামাত প্রায় ১০০ ভাষায় পবিত্র কোরআনের অনুবাদ প্রকাশ করেছে। এছাড়া আরো অনেক ভাষায় অনুবাদের কাজ চলমান আছে। বিভিন্ন ভাষাভাষী ও ধর্মাবলম্বীগণ এই অনুবাদ পড়ার পর ইসলাম সম্বন্ধে তাদের ভুল ধারণা দূর হচ্ছে, এমনকি স্বচ্ছ হৃদয়ের অধিকারীরা এর প্রভাবে নিজ থেকে এগিয়ে এসে ইসলাম গ্রহণ করছেন। আমরা চাই, প্রতিটি ভাষায় কোরআনের অনুবাদ প্রকাশ করে ইসলামের প্রকৃত শিক্ষা সবার কাছে পৌঁছে দিতে। আমরা এবার ৬৫টি ভাষায় অনুদিত কোরআন প্রদর্শনীর আয়োজন করেছি। এটি সবার জন্য উন্মুক্ত রয়েছে, যে কেউ এসে আন্তর্জাতিক মানের এ কোরআন প্রদর্শনী থেকে উপকৃত হতে পারেন।’

কোরআন প্রদর্শনীর পরিচালক মাওলানা শাহ মোহাম্মদ নুরুল আমীন বলেন- এ প্রদর্শনী দেখতে আসা বিভিন্ন ধর্মাবলম্বী ও দর্শনার্থীদের মাঝে ব্যাপক আগ্রহ ও উচ্ছ্বাস পরিলক্ষিত হচ্ছে। আহমদিয়া মুসলিম জামাত এ প্রদর্শনীর পদক্ষেপকে কোরআনের গুরুত্ব উপলব্ধি ও এর প্রকৃত জ্ঞান বিশ্বব্যাপী ছড়িয়ে দেয়ার এক মহাসুযোগ হিসেবে মনে করছে। প্রদর্শনীতে বাংলা, ইংরেজী, উর্দূ, মাওরি, জুলা, মেনডি, ওরিয়া, ইয়াউ, কিকাম্বা, কাটালান, টভালুয়ান ভাষা সহ মোট ৬৫টি ভাষায় অনুবাদকৃত কোরআন প্রদর্র্শীত হচ্ছে। কোরআনের পাশাপাশি রয়েছে ইসলামী বিভিন্ন পুস্তকের সমাহার।

আগামী ১৩ জানুয়ারি পর্যন্ত সকাল ৯টা থেকে রাত ১০টা পর্যন্ত উক্ত প্রদর্শনী খোলা থাকবে।

মাহমুদ

প্রচার সম্পাদক

আহমদিয়া যুব সংগঠন, বাংলাদেশ

৪, বকশী বাজার রোড, ঢাকা-১২১১

দৈনিক আলোর প্রতিদিন এর প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।

পাঠকের মতামত: