fbpx
প্রচ্ছদ / খেলাধুলা / বিস্তারিত

৮ মিনিটের ঝড়ে সর্বনাশ বার্সেলোনার

৩ নভেম্বর ২০১৯, ১:৩৫:৪৫

লিগের দ্বাদশ দলের সঙ্গে খেলা। ফর্মে ফিরেছেন লিওনেল মেসি ও লুইস সুয়ারেজ। আঁতোয়ান গ্রিজমানের সঙ্গে রসায়নটাও জমেছে বেশ। আজ তাই লেভান্তের বিপক্ষে সহজ জয়ই আশা করেছিল বার্সেলোনা। বার্সেলোনার হয়ে বাঁ পায়ে ৫০০তম গোল করে মেসি সেটা এগিয়েও রেখেছিলেন। কিন্তু দুর্দান্ত এক দ্বিতীয়ার্ধে মেসিকে প্রথমবারের মতো হারের স্বাদ উপহার দিল লেভান্তে। ৩-১ গোলে হেরে এখনো লা লিগার শীর্ষে বার্সেলোনা। তবে আজ রাতে রিয়াল মাদ্রিদের ম্যাচের পর সেটা বদলেও যেতে পারে।

বার্সেলোনার জার্সিতে মেসির বাঁ পায়ের ৫০০তম গোলটি এসেছে পেনাল্টি থেকে। নেলসন সেমেদোর এনে দেওয়া পেনাল্টি থেকে ৩৮ মিনিটে গোল করেছেন অধিনায়ক। পেনাল্টি নিয়ে কোনো সন্দেহ ছিল না। তবে পরে ভিডিও রিপ্লেতে দেখা গেছে, গোলের বিল্ডআপে আঁতোয়ান গ্রিজমান অফসাইডে ছিলেন। ফলে মেসির এ গোল নিয়ে হালকা বিতর্ক থাকবে।

এর আগে নিজেদের মাঠে দারুণ শুরু করেছিল লেভান্তে। বারবার প্রতি আক্রমণে উঠে বার্সা রক্ষণকে চমকে দিচ্ছিল লেভান্তে। লংলের একটি ট্যাকল না হলে তো ২০ মিনিটে পিছিয়েও পড়তে পারত বর্তমান চ্যাম্পিয়নরা। বারধি, মোরালেস ও মায়োরালরা বারবার বাঁ প্রান্ত দিয়ে ঢুকে পড়ছিলেন। গ্রিজমানকে পর্যন্ত বারবার রক্ষণে নামতে হচ্ছিল এ সময়। ফ্র্যাঙ্কি ডি ইয়ং ও আর্তুরো মিলে ধীরে ধীরে বার্সেলোনাকে ম্যাচে ফিরিয়েছেন। মাঝমাঠের নিয়ন্ত্রণে ম্যাচেও প্রভাব বেড়েছে বার্সেলোনার। তারই ফল এসেছে ৩৮ মিনিটে। গোলের একটু পরেই অবশ্য চোট পাওয়ায় মাঠ ছেড়েছেন সুয়ারেজ। কার্লেস পেরেজ নামায় অনন্য এক দৃশ্য দেখা গেছে। মাঠে থাকা বার্সেলোনার আক্রমণের তিন খেলোয়াড়ই বাঁ পায়ের!

মেসির বাঁ পায়ের সঙ্গে অন্য দুই পায়ের সমন্বয়টা ভালো হয়নি। দ্বিতীয়ার্ধেই সেটা বোঝা গেছে। প্রথমার্ধের ধাক্কা কাটিয়ে ধীরে ধীরে ম্যাচে ফিরেছে লেভান্তে। ৬১ মিনিটে বার্সার একটি ভুল পাস থেকে বল পান নেমানজা রাজা। তাঁর হেড এসে পড়ে বোর্হা মায়োরালের কাছে। সেখান থেকে বল মোরালেসের পা ঘুরে কাম্পানিয়ার কাছে। জোরালো শট ঠেকানোর কোনো সুযোগ পাননি টের স্টেগেন।

এ গোলের পরই ভিদালকে তুলে বুসকেটসকে নামান কোচ ভালভার্দে। উদ্দেশ্য, ম্যাচের নিয়ন্ত্রণ আনা। উল্টো তিন মিনিটের মধ্যে দুর্দান্ত এক গোল করে লেভান্তেকে এগিয়ে দিলেন রিয়াল মাদ্রিদ থেকে ধারে খেলতে আসা মায়োরাল (২-১)। এবার বলের জোগান দিয়েছেন প্রথম গোলদাতা কাম্পানিয়া। আবারও খেলোয়াড় বদল বার্সেলোনার। আর্তুরকে তুলে আনসু ফাতিকে নামানো হয়েছিল। চারজন স্ট্রাইকার নিয়ে গোলের শোধের যুদ্ধে নেমেছিল বার্সেলোনা। কিন্তু ৪ মিনিট পরেই ব্যবধান ৩-১। এবারের গোলদাতা প্রথম গোলের নায়ক রাজা। তাঁর জোরালো শট বুসকেটসের পায়ে লেগে ফাঁকি দিয়েছে টের স্টেগেনকে।

৭৪ মিনিট দুর্দান্তভাবে একটা গোল শোধ দিয়েছিলেন মেসি। কিন্তু এবার গোলের বিল্ড আপে যে আবার অফসাইডে ছিলেন গ্রিজমান। ম্যাচের বাকি সময়ে বহু চেষ্টা করেও আর গোলের দেখা পায়নি বার্সেলোনা।

ওদিকে প্রিমিয়ার লিগে দুর্দান্ত নাটক হয়েছে। শীর্ষে থাকা দুই দল লিভারপুল ও ম্যানচেস্টার সিটি প্রথমার্ধেই গোল খেয়েছিল। সাউদাম্পটনের বিপক্ষে ৭০ ও ৮৬ মিনিটে দুই গোল করে লিভারপুলের সঙ্গে পয়েন্ট ব্যবধান তিনে নামিয়ে আনার স্বপ্ন দেখছিল সিটি। প্রথমার্ধে লিভারপুলের ফিরমিনোর গোল বিতর্কিতভাবে বাতিল করেছে ভিডিও অ্যাসিস্ট্যান্ট রেফারি। সে দুঃখ ভুলতে সময় লেগেছে। অ্যাস্টন ভিলার বিপক্ষে ৮৭ মিনিটে ম্যাচে ফিরেছে লিভারপুলে। ৯৪ মিনিটে সাদিও মানের গোল নিশ্চিত করেছে শীর্ষ দুই দলের মাঝে পয়েন্ট ব্যবধান ৬-ই থাকছে।

দৈনিক আলোর প্রতিদিন এর প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।

পাঠকের মতামত: