ঘোনায় পৈতৃক সম্পত্তির গাছ কেটে জোর পূর্বক যাত্রী ছাউনী নিমার্ণের পায়তারা

১১ জুলাই ২০১৯, ৮:০৮:৫৫

নিজস্ব প্রতিনিধি: সদর উপজেলার ঘোনা ইউনিয়নের মোবারকের মোড়ে মৃত হাজের সরদারের পুত্র রইস উদ্দিনের পৈত্রিক জমিতে ৪০ বছরের ২টি তালগাছ কেটে জোর পূর্বক যাত্রী ছাউনী নির্মাণের পায়তারার অভিযোগ উঠেছে। সূত্র জানায়, দীর্ঘকাল রইচ উদ্দীন তার ওয়ারেশগণদেরকে নিয়ে উক্ত জমিতে বসবাস করে আসছে এবং বর্তমানে প্লান করে মার্কেট নির্মাণ করায় ষড়যন্ত্রমূলকভাবে যাত্রী ছাউনী নির্মাণ করার অপচেষ্টা চালাচ্ছে। যাত্রী ছাউনী’র প্রয়োজন না থাকা সত্বেও উল্লেখিত জমির উপর জেলা পরিষদের অর্থয়নে ঘোনা ইউনিয়ন পরিষদের বাস্তবায়নে যাত্রী ছাউনী নির্মাণের মূল্য সাইনবোর্ড লাগানো হয়েছে। অথচ উক্ত জমি সরকার কর্তৃক অধিগ্রহন করা হয়নি, কোন নোটিশ বা ক্ষতিপূরণও প্রদান কনা হয়নি বলে রইচ উদ্দীন জানান। স্থানীয় মেম্বরের কাছে এব্যপারে জানতে চাইলে তিনি বলেল, এখানে যাত্রী ছাউনীর কোন প্রয়োজন হয় না বা এলাকাবাসী এর বিপক্ষে। এব্যপারে ঘোনা ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যানের সাথে যোগাযোগ করলে তিনি জানান, জেলা পরিষদ এখানে যাত্রী ছাউনী কারার জন্য ৩ লক্ষ টাকা বরাদ্ধ করেছেন এবং জেলা পরিষদ ও ইউএনও যেভাবে বলবেন আমরা এখানে সেভাবে কাজ করব।

চেয়ারম্যান যাত্রী ছাউনী তৈরীর জায়গা খাস জায়গা বলে দাবি করেন। উল্লেখিত জমিরত যাত্রী ছাউনী নির্মাণ করা হতে বিরত থাকার অনুরোধ জানিয়ে মো. রইচ উদ্দীন সাতক্ষীরা জেলা পরিষদের নিবার্হী প্রকৌশলী বরাবর এড. মো. আজিজুল ইসলামের মাধ্যমে লিগ্যাল নোটিশও পেরণ করেছেন। “তপশীল সম্পত্তির পরিচয় ‘জেলা সাতক্ষীরা, থানা-সাতক্ষীরা সদর, মৌজা: ঘোনা অন্তর্গত এসএ ৬০০ নং খং ডিপি-১৮১৬নং খং এসএ/ডিপি ৬৭৪৮/৯৮০৭ দাগে ৫ শতাংশ জমি মাত্র। যাহার উত্তরে-নিজামুদ্দীন, দক্ষিণে-রাস্তা, পূর্বে ও পশ্চিমে-শুকুর আলী দিং। এব্যাপারে সংশ্লিষ্ঠ কতৃপক্ষের আশু হস্তক্ষেপ কামনা করেছেন এলাকাবাসী ও ভুক্তভোগী পরিবার।

দৈনিক আলোর প্রতিদিন এর প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।