সবজির বাজারে আগুনের ঝাঁজ,মাছ মুরগিতে স্বস্তি

১৫ অক্টোবর ২০২০, ৬:০০:২৮

সাব্বির আহমেদ,রানীশংকৈল প্রতিনধিঃ

বন্যার কারণে যেন লাগামহীন ভাবে বেড়েই চলছে কাঁচা সবজির দাম এতে বিপাকে পড়েছে খেটে খাওয়া নিম্ন আয়ের মানুষেরা। এদিকে সবজির দাম বেশি থাকায় দাম কম রয়েছে মাছসহ দেশি এবং ব্রয়লার মুরগির দাম। এতে কিছুটা স্বস্তিতে রয়েছে নিম্ন আয়ের মানুষসহ মধ্যম আয়ের পরিবারগুলো।

ঠাকুরগাঁওয়ের রাণীশংকৈলের সব থেকে বড় পাইকারি সবজির বাজার উপজেলা শিবদিঘি পৌর কাঁচা বাজার যা করোনার কারণে জন সমাগম এড়াতে হাটটি বসানো হয়েছে উপজেলার শেখ রাসেল মিনি স্টেডিয়াম মাঠে। সেখানে গিয়ে দেখা যায় লাগামহীন ভাবে চড়া দামে পাইকারি বিক্রি হচ্ছে সকল প্রকার কাঁচা সবজি।বাজার ঘুরে দেখা গেছে, প্রতি কেজি বেগুন ৬০,আলু ৪৫,মুলা ৪০, কচু ৩০,বরবটি ৬০,পেপে ৩০,করলা ৬০,পেয়াজ ৯০,রসুন ১১০,কাঁচা মরিচ ২৫০-২৬০ টাকা দরে বিক্রি হচ্ছে খুচরা বাজারে। এদিকে শাকের দামও যেন চড়া। যা গত সপ্তাহের তুলনায় প্রায় দ্বিগুন আর এতে সব থেকে বিপাকে পড়েছে খেটে খাওয়া দিন মজুর নিম্ন আয়ের মানুষ।

বাজার করতে আসা পৌর শহরের বাসিন্দা নুর ইসলাম কিনু জানান, গত সপ্তাহে যে জিনিসিটি আমরা কম দামে কিনেছিলাম সেটি আজ ডাবল দামে কিনতে হচ্ছে। বাজার করতে এসে যেন আগুনের ঝাঁজ লাগে।

কয়েকজন খুচরা বিক্রেতা জানান, বাজারে সবজির আমদানি অনেক কম । যেসব সবজি আসে সেসব সবজির তুলনায় আমরা খুচরা ব্যবসায়ী অনেক । যার কারণে আমাদের গত সপ্তাহের তুলনায় এ সপ্তাহে চড়াও দামে সবজি কিনতে হচ্ছে।

এদিকে সবজির বাজারে কাঁচা সবজির দাম বাড়লেও এবছর কয়েক দফায় বন্যা হওয়ার কারনে কয়েক বছরের তুলনায় মাছের বাজার অনেকটা নিয়ন্ত্রণে। শুধু মাছ নয় এদিকে উপজেলায় দেশি মুরগি প্রতি কেজি ২৪০-২৬০ টাকা এবং ব্রয়লার প্রতি কেজি ১১০-১২০ টাকা কেজি দরে বিক্রি হচ্ছে। যা নিম্ন আয়ের ক্রেতাদের কিছুটা হাতের নাগালে। এতে স্বস্তিতে রয়েছে নিম্ন আয়ের মানুষসহ মধ্যম আয়ের পরিবারগুলো।

সবজি বিক্রি করতে আসা কয়েকজন কৃষক জানান এ বছর কয়েক দফায় বন্যার কারণে সবজির ক্ষেত পানির নিচে তলিয়ে যায়। যার কারণে প্রায় বেশির ভাগই ফসল নষ্ট হয়ে গেছে তাই কাচা সবজির বাজার দাম অনেকটা বেশি আগের তুলানায়।

দৈনিক আলোর প্রতিদিন এর প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।